প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। গ্রাহক আপনার বাচ্চার বয়স ১৬ মাস হলে ধরে নিলাম আপনি বারতি খাবার শুরু করেছেন।সেক্ষেত্রে তেমন কোন অসুবিধা হওয়ার কথা না। আপনি চাইলে বুকের দুধ বাচ্চার জন্য রেখে জেতে পারেন। যদি আপনি বাচ্চার জন্য বুকের দুধ সংরক্ষণ করে পরে অল্প অল্প করে খাওয়াতে চান তাহলে আপনাকে একটি জীবাণুমুক্ত পাত্রে তা সংরক্ষণ করতে হবে। বোতল জীবাণুমুক্ত করার উপায় সম্পর্কে আমাদের পাতাটি দেখুন। আপনি বুকের দুধ সংরক্ষণ করতে পারেনঃ -৪° সেলসিয়াসে ফ্রিজে রেখে পাঁচ দিন পর্যন্ত -ফ্রিজের বরফ জমানোর জায়গায় রেখে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত -ডীপ ফ্রিজে রেখে ছয় মাস পর্যন্ত বরফ হয়ে যাওয়া বুকের দুধ স্বাভাবিক করতে হলেঃ জমিয়ে বরফ করে ফেলা বুকের দুধ বাচ্চাকে খাওয়ানোর আগে ফ্রিজের ভেতরেই যেখানে ঠাণ্ডা তুলনামূলকভাবে  কম সেখানে রেখে গলিয়ে নিন। গলে যাবার পরে দেরি না করে দুধ বাচ্চাকে খাইয়ে দিন। কখনই জমাট অবস্থা থেকে গলিয়ে ফেলা দুধ আবার সংরক্ষণ করবেন না। দুধ গরম করাঃ যদি ঠাণ্ডা দুধ খেতে আপনার বাচ্চার কোনরকম সমস্যা না হয় তাহলে তা ফ্রিজ থেকে বের করে সঙ্গে সঙ্গে তাকে খাইয়ে দিন। তবে যদি আপনার বাচ্চা পছন্দ করে তাহলে ঠাণ্ডা কমানোর জন্য ফীডারটি হালকা গরম পানিতে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রেখে তারপর তাকে খেতে দিন। বরফ হয়ে যাওয়া দুধ গলানোর জন্য বা গরম করার জন্য মাইক্রোওয়েভ ওভেন ব্যবহার করবেন না, কারণ তাতে দুধ বেশি গরম হয়ে বাচ্চার মুখ পুড়ে যেতে পারে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও