প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া ফার্মেসী

প্রিয় গ্রাহক,
আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।
গ্রাহক, গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা বা গ্যাস্ট্রাইটিস এর সমস্যা কোন বড় কিছু নয়। লাইফস্টাইল মডিফিকেশনের মাধ্যমে সহজেই এটা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। গ্রাহক গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা কমানোর জন্য শুধু ওষুধ যথেস্ট নয় , এর জন্য জীবন ধারার কিছু পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। নিচে কিছু নিয়ম দিয়া হলো যা এই সমস্যা কমাতে সাহায্য করবে, যদিও সবার জন্য একই নিয়ম হয়ত কাজ করবে না। তারপর চেস্টা করে দেখতে পারেন।
# দৈনন্দিন কাজগুলো সময় মেনে করুন যেমন কাজের জন্য খাওয়া এবং ঘুমের সময় যেন প্রভাবিত না হয়।
# অতিরিক্ত বেশি বা কম উভয় ওজনের মানুষের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি হয়। তাই উচ্চতা এবং বয়স অনুযায়ী যেন ওজন সাভাবিক সীমার মধ্যে থাকে
#যেসকল খাবার গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা বাড়িয়ে দেয় তা যতই পছন্দের হোক এড়িয়ে চলতে হবে - তেল মশলা এবং চর্বি যুক্ত খাবার, অতিরিক্ত চা, কফি, টক জাতীয় ফল ইত্যাদি।
# একসাথে অনেক খাবার না খেয়ে বার বার অল্প অল্প করে খান।
#খাওয়ার ঠিক পরেই শুয়ে পরা ঠিক না।
# সিগারেট এবং মদ্যপানের অভ্যাসথাকলে ত্যাগ করতে হবে।
# অনেকের কিছু খাবারে এসিডিটি বেশি হয় সেগুলো বাদ দিতে হবে।
নিয়মিত খাওয়া কিছু ওষুধ যেমন প্রেসার , পেইন কিলার, হাপানি কিছু এন্টি বায়োটিক, আইরন ট্যাবলেট , এলার্জির ওষুধ খেলে এসিডিটি বেশি হয়, সেই রকম ক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

শারীরিক দুর্বলতা কাজের উৎসাহ একেবারে নষ্ট করে দেয়। কিন্ত এই ধরণের শারীরিক দুর্বলতা কাটাতে প্রয়োজন আমাদের একটু সতর্কতা।
*সকালের সূর্যের আলো গ্রহন করুন। সকাল ৮-৯ টায় সূর্যের আলোর মধ্যে যাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে করে দেহে ভিটামিন ডি পৌছায় যা আমাদের দেহের হাড়ের গঠন সুগঠিত করার পাশাপাশি আমাদের শারীরিক দুর্বলতা কাটাতে সহায়তা করে। মাথা ঘোরানো কিংবা শরীরে শক্তি না পাওয়ার সমস্যা সমাধান করে।
*চা/কফি পান কমিয়ে দিন। চা/কফির ক্যাফেইন আমাদের শারীরিকভাবে দুর্বল করে তোলে। চা/কফি চা করলে তাৎক্ষণিকভাবে দেহে চাঙা ভাব এলেও এটি আমাদের দেহ পানিশূন্য করে ফেলে যার ফলে আমাদের দেহে পানির চাহিদা বৃদ্ধি পায় ও আমরা দুর্বলতা অনুভব করি। তাই চা/কফি পানের মাত্রা কমিয়ে দিন।
*কাজের ফাঁকে খানিকক্ষণ বিশ্রাম গ্রহন করুন। কাজের ফাঁকে খানিকটা সময় পাওয়ার ন্যাপ অর্থাৎ মাত্র ১০ মিনিটের ঘুম দেহের কোষগুলোকে তরতাজা কর তোলে ফলে আমরা কাজের মাধ্যমে যে শক্তি হারাই এবং দুর্বলতা অনুভব করি তা পুনরায় ফিরে আসে। এবং আমাদের শারীরিক দুর্বলতা কেটে যায়।
*পর্যাপ্ত পানি পান করুন। আমাদের দেহ পানিশূন্য হলে আমরা শারীরিকভাবে প্রচণ্ড দুর্বল হয়ে পরি। তাই নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করা উচিৎ সকলের। দেহ হাইড্রাইট থাকলে শারীরিক দুর্বলতার সমস্যা কেটে যায় একেবারে।
*এনার্জি সমৃদ্ধ কিছু খাবার রাখুন হাতের কাছে। যখনই শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়বেন তখন তাৎক্ষণিক ভাবে এমন কিছু খাওয়া উচিৎ যা দেহে শক্তি ফিরিয়ে দেবে। বাদাম, খেজুর এবং মিষ্টি জাতীয় খাবার হাতের কাছে রাখবেন সব সময়। এতে করে শারীরিক দুর্বলতাকে কাটিয়ে উঠা সম্ভব।
*পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান। ঘুমের পরিমাণ কম হলেও আমরা শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পরি। কারণ ঘুমের মাধ্যমে আমাদের দেহের ও মস্তিষ্কের কোষ নতুন করে শক্তি অর্জন করে। যখন ঘুম কম হয় তখন মাথা ঘোরানো এবং দুর্বলতা অনুভব করার পরিমাণ বেড়ে যায়। তাই পর্যাপ্ত ঘুমই দূর করতে পারবে শারীরিক দুর্বলতা।
*ব্যায়াম, মেডিটেশন, yoga করতে পারেন। এগুলো আপনাকে সতেজ রাখবে। কাজ করার অনুপ্রেরণা যোগাবে। খাওয়ার রুচি বাড়াবে, দুর্বলতা কমবে। শরীর ফিট রাখবে।
* মাল্টি ভিটামিন ট্যাবলেট খেতে পারেন। যা আপনার মেটাবলিজম এ সাহায্য করবে। দুর্বলতা কমাবে।

আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া কে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া ।

সমস্যা নিয়ে বসে থাকবেন না !

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রি বিশেষজ্ঞ পরামর্শ পেতে

প্রশ্ন করুন এখনই


মায়া অ্যাপে পড়ুন