প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া ফার্মেসী

প্রিয় গ্রাহক, প্রশ্ন করার জন্য ধন্যবাদ। ঢেঁকুর ওঠা অ্যাসিড রিফ্লাক্সের কারণেই হয়ে থাকে। তবে ঢেঁকুর যদি টক ঢেঁকুর হয়ে থাকে এবং এর কারণে পেটভার পেট ফুলতে থাকা গা-বমি বা বমি ইত্যাদি উপসর্গের এক বা একাধিক দেখা দেয় বুঝতে হবে ডিসপেপসিয়া হয়েছে ৷যাই হোক, জেনে নিন ঘন ঘন ঢেঁকুর উঠলে কি করবেন: প্রথম ওষুধ হলো পানি, হাতের কাছে পানি থাকলে পান করতে থাকুন ঢগঢগ করে ৷তবে যদি হাতের কাছে পানি না থাকে তবে আঙ্গুলে চেপে নাক বন্ধ করে শ্বাস নেয়ার চেষ্টা করবেন আর এভাবে ৫ থেকে ৭ সেকেন্ড থেকে নাক ছেড়ে দিবেন ৷যাদের খেতে বসলেই ঢেঁকুর উঠে, তারা খাওয়ার আগে পানি পান করে নেবেন এক গ্লাস, তাহলে দেখবেন খাওয়ার সময় বা পরে ঢেঁকুরের সমস্যা কম হবে ৷যারা দ্রুত খায় তারা সাধাণরত খাবার ঠিক মতো চিবিয়ে খায় না। খাবার না চিবিয়ে দ্রুত খেলে খাবারের ফাঁকে বাতাস ঢুকে খাদ্যনালীতে আটকে যেতে পারে। এর ফলাফল হলো বিরক্তিকর ঢেঁকুর। তাই গিলে না খেয়ে চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন এবং খাবেন অল্প পরিমাণে। খাওয়ার পর একটু হাঁটুন। খাওয়ার পর পর টেলিভিশন দেখতে বসবেন না। মাত্র ১০ মিনিট হাঁটলেও আপনার পাকস্থলী বায়ুশূন্য হয়ে যাবে। রাতের পাকস্থলীর ওপর চাপ দিয়ে কিংবা ডানদিকে কাত হেয় শুয়ে পড়ুন। এতে খাবার হজম হবে ভালোভাবে। পেটে গ্যাস জমবে না। আদার ঝাঁঝালো গন্ধে সমস্যা না থাকলে রোজ দিনে দু-তিন বার কয়েক কুচি আদা চিবোন। চাইলে, একটু মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। আর সমস্যা যদি একেবারে নিয়মিত হতে থাকে, তো জিরা খোলায় ভেজে নিন। এরপর এটাকে গুড়িয়ে নিন। এক গ্লাস উষ্ণ পানিতে দু’চামচ মিশিয়ে রোজ খান। অথবা আপনার রোজকার ডায়েটে অবশ্যই রাখুন টক দই। টক দই ঢেকুর দূর করে দ্রুততম সময়ে। এভাবে জিরা খেতে সমস্যা হলে তরকারিতে মৌরি দিয়ে ফোড়ন দিন। যাই খান সেই আপনার ঢেকুর আটকাবে।গরম পানির সঙ্গে পুদিনা পাতা ফুটিয়ে খেতে পারেন। রোজ পেঁপে খেলে হজম ক্ষমতা এমনিতেই চড়চড় করে বাড়ে। অকারণ গ্যাস তৈরি হয় না। ঘনঘন ঢেকুরও আর ওঠে না। দীর্ঘদিন এই সমস্যা ভুগছেন, যদি ব্যাপারটা এরকম হয় তাহলে পাতিলেবুর রসে ১/৪ চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিয়ম করে খেতে পারেন।

সমস্যা নিয়ে বসে থাকবেন না !

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রি বিশেষজ্ঞ পরামর্শ পেতে

প্রশ্ন করুন এখনই

মায়া অ্যাপে পড়ুন