প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।আপনার মধ্যে যে উপলব্ধি হয়েছে তা খুবই প্রশংসনীয়। রাগ আমরা তার সাথেই প্রকাশ করে থাকি যার সামনে সেফ থাকি বা যে পাল্টা কিছু করবে না।  এছাড়া রাগ হওয়ার পিছনে বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে।  আপনার মধ্যে কি অপরাধবোধ কাজ করছে এই যে আপনি প্রকাশ করছেন আপনার রাগটা আপনার সন্তানের উপর? রাগ কে পজিটিভ ভাবে প্রকাশ করা সবার জন্য ই ভালো। পজিটিভ ভাবে বলতে বুঝায় অন্যের কোনো ক্ষতি না করে বা নিজের কোনো ক্ষতি না করে রাগ কে প্রকাশ করা।রাগ প্রকাশ করার জন্য সর্বপ্রথম কোন কোন ক্ষেত্রে আপনার রাগ হয় সেটা চিহ্নিত করার চেষ্টা করুন।রাগের ফলে কি অনুভূতি হচ্ছে সেটা বুঝার চেষ্টা করুন।রাগ হলে কিছু সময় নিন সেই স্থান টা থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন এ সময়ে ১-১০ পর্যন্ত গুনতে পারেন।এরপর আপনার যা বলার তা প্রকাশ করতে পারেন।যেমন- এভাবে বলতে পারেন আমি রাগ অনুভব করছি যেহেতু তুমি খাওয়ার পর প্লেট টা না গুছিয়ে ই চলে গেছো।এছাড়া ও রাগের সময় কিছু শারীরিক ব্যায়াম বা মেডিটেশন করা যেতে পারে।রাগ কমানোর জন্য রাগের কারন টা ডায়েরি তে লিখা যেতে পারে।এছাড়া যখন রাগ হবে তখন গান করা বা নাচা ইত্যাদি করলে রাগ কিছু টা কমে।এছাড়া ও জীবনে কিছু কিছু শব্দের ব্যবহার রাগের কারন হয়ে দাঁড়ায় যেমন-Always,must,should ইত্যাদি। এ শব্দ গুলো এড়িয়ে চললে রাগের পরিমান কিছুটা কমে।দুষ্টামি করবেই বাচ্চারা তাইনা? কারণ তারা বয়ষ্ক দেড় মতো করে চিন্তা করা বা প্রকাশ করতে পারে না।  তবে কি কি কারণে সে এই আচরণ গুলো করছে সেটা দেখতে পারেন। ওই সময় কিছু না বলে এভোইড করে. পরবর্তীতে তাকে সঠিক আচরণ টা এক্সপ্লেইন করতে পারেন। আশা করি,আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোনো প্রশ্ন থাকলে,মায়া কে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া। 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও