প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।একটি নির্দিষ্ট বয়সের পর প্রতিটি মহিলারই নিয়মিত মাসিক চক্র বা পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে মেনোপজ বলে। পুরুষদের যৌন ক্ষমতা নিঃশেষিত হবার পর তেমন কোন শারীরিক বা মানসিক সমস্যা দেখা দেয় না, কিন্তু মাসিক বন্ধ হবার পর অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয় মহিলাদের মাঝে। যদিও পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়া মানে একজন নারীর যৌন ক্ষমতা ফুরিয়ে যাওয়া নয়। তবে এটার অর্থ এই যে তাঁর শরীর আর নতুন ডিম্বাণু সরবরাহ করতে পারবে না। অর্থাৎ স্বাভাবিক উপায়ে তিনি আর সন্তানের জন্ম দিতে পারবেন না।সুতরাং বলা যায় যে সাধারণত ৪০ হতে ৫৫- এই বয়স সীমার মাঝে বা কাছাকাছি কোনও সময়ে যদি টানা ১২ মাস মেনসট্রুয়েশন বা পিরিয়ড বন্ধ থাকে, তবে তাকেই মেনোপজ বলা যাবে। এটা একটি স্বাভাবিক এবং অবশ্যম্ভাবি জৈবিক ঘটনা। অর্থাৎ প্রত্যেক নারীর শরীরবৃত্তীয় চক্রে এই সময়টি উপস্থিত হবেই হবে।মেনোপজের কিছু সময় আগে থেকেই মাসিক অনিয়মিত হতে শুরু করে। সেই সাথে দেখা দিতে শুরু করে নানান রকম শারীরিক সমস্যা। মেনোপজের আগে ও পরে কি ধরনের শারীরিক ও মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে সে সম্পর্কে যদি আগে থেকে সচেতন থাকা যায় তা হলে সহজেই ভালো থাকা সম্ভব।অনেকেরই তেমন কোনও চিকিৎসা দরকার হয় না, তবে ডাক্তারের পরামর্শ অবশ্যই নিতে হবে। শরীরের যত্ন, ত্বকের যত্ন, ব্যায়াম এই তিনটি ব্যাপার বিশেষভাবে মনে রাখতে হবে। সুষম আহার, কোষ্ঠকাঠিন্যের চিকিৎসা আর ঠিকঠাক ঘুম দরকার। এ ধরনের মানসিক পরিস্থিতিতে স্বামী এবংপরিবারের সহযোগিতা খুবই জরুরি। স্বামী যদি স্ত্রীরমানসিক অবস্থা সম্পর্কে কিছুটা বুঝে তাকে সাহায্য করেন তাহলে মানসিক অস্থিরতাকিছুটা কম হয়। সারাদিন পর এক সঙ্গে গল্প করা বা পছন্দের জায়গায় ঘুরতে যাওয়া এধরনের মানসিক পরিস্থিতিতে খুবই কার্যকর।”মেনোপজেরকারণে শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দেয়। তাই এ সময় খাবারের ব্যাপারে বিশেষ নজর দিতে হবে। আর মাঝ বয়সে সব ধরনের খাবারওখাওয়া যায় না। তাই নিয়ম করে পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।“এ সময়ভালো ‘প্রোটিন’ এবং ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবারখাওয়ার অভ্যাস তৈরি করা উচিত। তাছাড়া ভিটামিন বি কমপ্লেক্সও খেতে হবে। কিডনি বিন, হোলগ্রেইন আটার রুটি, মুরগির মাংস, কলিজা, লাল চালের ভাত, ব্রকলি, সবুজ শাকসবজিইত্যাদি খাবার থাকতে হবে খাবারের তালিকায়। তাছাড়া ক্যালসিয়ামও হার্ট ভালো রাখতে গরুর দুধ খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে।” নিয়মিত হেলথ চেক আপ জরুরি। খুব বেশি উপসর্গ থাকে যাঁদের, যেমন বার বার কান মাথা জ্বালা করছে, কমছে না বা গাঁটে গাঁটে খুব ব্যথা যা একেবারে ঘুম হচ্ছে না, অসম্ভব টেনশন, সেই সকল ক্ষেত্রে HRT বা hormone replacement therapy দরকার হতে পারে তাও Short term অর্থাৎ অল্পদিনের জন্য।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও