প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া শপ

মায়া প্রশ্নের বিস্তারিত


গ্রাহক যে কোন কোমল পানীয় এর কোন খাবার হজমে সরাসরি কোন ভূমিকা নেই। মাংস বা যে কোন রিচ ফুড সহজে হজমের জন্য কিছু নিয়ম মেনে চললে উপকার পাওয়া যাবে। মাংস, পোলাও, বিরিয়ানি ইত্যাদি গুরুপাক খাবার যখন খাবেন, তখন খাবারের সঙ্গে প্রচুর টক দই এর সাথে সালাদ  খাবেন। কারণ সালাদ খাবার হজমে সাহায্য করে। এছাড়া প্রতি বেলার খাবারে অবশ্যই বেশি বেশি সবজি খাবেন। টক দই, বোরহানি, লেবুর শরবত (চিনি ছাড়া) ইত্যাদি খাবার হজমে সহায়ক। এগুলো খাবার পর খেতে পারেন।

যে কোন খাবারের সাথে আমরা কোমল পানীয় খেতেই পারি তবে  আমাদের কোমল পানীয় গ্রহণের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে কারণ -

  • যারা  লো-ফ্যাট মিল্ক ও খাঁটি ফলের শরবতের মতো স্বাস্থ্যকর তরলের পরিবর্তে কোমল পানীয় পান করে তাদের পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম পাওয়ার সম্ভাবনা কম।
  • এক ক্যান কোমল পানীয়তে ১০ চা-চামচ চিনি থাকে।  যখন আপনি তরল আকারে এ পরিমাণ চিনি আপনার শরীরকে খাওয়ান, এটি আপনার রক্ত শর্করাকে অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি করে  এবং শরীরে ইনসুলিন প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। নিয়মিত কোমল পানীয় পান ওজন বৃদ্ধি, ডায়াবেটিস, ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার দিকে ধাবিত করে।
  • কোমল পানীয় পান হতে পারে পানিশূন্যতার কারণ, কারণ এতে উচ্চমাত্রায় চিনি-সোডিয়াম-ক্যাফেইন থাকে। অনেকে খাবার খাওয়ার সময় পানির পরিবর্তে কোমল পানীয় পান করেন এবং দৈনিক প্রয়োজনীয় পানি পান করেন না, যার ফলে তারা পানিশূন্য হয়ে পড়ে।
  • নিয়মিত কোমল পানীয় পানে দাঁতে প্লেক বা হলুদ আবরণ জমে, যা ক্যাভিটি ও মাড়ি রোগের কারণ হতে পারে। এছাড়া মুখের প্রাকৃতিক ব্যাকটেরিয়া কোমল পানীয়র চিনি খেয়ে অ্যাসিড তৈরি করে। এ অ্যাসিড দাঁতের ক্ষয় বা ক্যাভিটি সৃষ্টি করে।

আশা করি সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাবেন। 



প্রশ্ন করুন আপনিও