প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। গ্রাহক হাটুর ব্যাথা কমাতে যা করবেন: ১.হাঁটুর ব্যথার জন্যে সবচেয়ে বড় নিয়ামক বা ঝুঁকির নাম হচ্ছে অতিরিক্ত ওজন৷ এক কেজি ওজন বাড়লে এর ছয়গুণ চাপ হাঁটুতে পড়ে৷ সুতরাং স্থূলদেহী এবং হাঁটুর ব্যথায় ভুগছেন এমন যে কারও উচিত হবে ওজন কমানোর দিকে মনোযোগ দেওয়া৷ ২. হাঁটুর যে কোন ব্যথার জন্যে সেঁক হচ্ছে সবচেয়ে কার্যকর ঔষধ৷ খুব গরম কিছু ব্যবহার করবেন না, তাতে ত্বক পুড়ে যেতে পারে৷ আবার কাজ শেষ করেও সেঁক দিতে বসে যাবেন না, আগে বিশ্রাম নিন, হাঁটুকে সময় দিন, তারপর সেঁক দেবেন৷ ৩. কোনও ধরনের নড়াচড়া বা কাজের জন্যে হাঁটুর ব্যথায় ভুগছেন, এক্ষেত্রে আপনার করণীয় হবে: পর্যাপ্ত বিশ্রাম, আক্রান্ত স্থানে বরফ সেঁকের পাশাপাশি সামান্য চাপ প্রয়োগ এবং সবশেষে আক্রান্ত স্থানটি শরীরের অন্য অংশের তুলনায় অন্তত ২০ থেকে ৩০ মিনিটের জন্যে কিছুটা ওপরে তুলে রাখা৷ প্রদাহ রোধে বরফের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে৷ ব্যথা অনুভব করছেন না, এমন সময়েও বরফ ব্যবহার করতে পারেন৷ ৪. হাঁটুর অভ্যন্তরে একটি ট্রিগার পয়েন্ট আছে যেখান থেকে ব্যথা সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে৷ এই ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে হলে, সন্ধির ঠিক টুপির (প্যাটেলা নামক হাড়) কাছে হাত রাখুন, তারপর ধীরে ধীরে ইঞ্চি তিনেক পর্যন্ত আঙুল তুলে আনুন, তারপর ভেতরের দিকে দুই থেকে চার ইঞ্চি পর্যন্ত নিয়ে আসুন৷ বুড়ো আঙুলের ডগা ব্যবহার করবেন৷ এবার চাপ দিন, যতক্ষণ না মাংসপেশীর আড়ষ্টতা কেটে যায়৷ বেশিক্ষণ চাপ দেবেন না, সর্বোচ্চ মিনিট খানেক পর্যন্ত চাপ দিতে পারেন, তারপর ছেড়ে দিন৷ আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও