আসলে আমার আমি একটি মেয়ের সাথে রিলেশনে জড়াই। প্রায় ২ বছর তার সাথে রিলেশন ছিল। ১মাসে ১০ দিন ভালো থাকতাম আর ২০ দিন ঝগড়া হত। মেয়েটি অন্য ছেলেদের সাথে আজে বাজে কাজ করে আমার সাথে রিলেশন চলা কালিন অওরে আবার সরি বলে আমার কাছে ফিরে আসে। আমি তাকে আবার সুযোগ দি এমন অনেক বার হয় অবশেষে আমি তার সাথে কথা বলে আমাদের সম্পর্ক শেষ করর দি আমি অন্য রিলেশনে যাই। সে কিছুদিন পরে আমাকে কল করর ইমোশনাল করে ফেলে। পরে আমার সাথে যাত বর্তমান রিলেশন চলছিল তাকে কল দিয়ে আজে বাজে বুঝায়। পরে আমি বলে দি আমি আগেরটার কাছে ফিরে যাবো। তো আবার আমাদেএ আগের মত চলতে থাকে রিলেশিন। কিছুদিন কথা আবার ঝগড়া। আবার ২ মাস পরে আমি আবার ছুটে যাই তার থেকে।তার বাজে কাজ দেখে। তো আমি আবার অন্য এক মেয়ের সাথে রিলেশনে জড়াই আমার এএক্স এর সাথে ভালোভাবে কথা বলে আমরা বিচ্ছেদ হই।সে তার মত তাল লাইফ ইনজয় করছিল আমি আমার মত। পরে আমার এক্স আমার বর্তমানে যার সাথে রিলেশন চলছিল তার ডিটেলস বের করে তাকেও যা তা বলে আমার নামে। সে আগে থেকে আওব জানে আমার বেপারে। তাই সে কানে নেই নি পরে এএক্স আমার বড় বোন কে বলে আবার আমার সাথে যার চলছিল তার বড় ভাইকে আমাদের বিভিন্ন রকম ছবি দেখায়। তার ভাই তার মোবাল নিয়ে নেয়। ঘড় বন্ধি করে,,তাকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। এবং আমার নামে আমার এক্স তার ভাইকে বলে আমি মেয়েদের সাথে ফিজিকেল করে তাদের ছেড়ে দেই। তো এই সব কারনে আমার দিন গুলো ভিষন পরিমানে ডিপ্রেশনে যাচ্ছে এখন আমার কি করনিও?

প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার যার সাথে সম্পর্ক ছিল তার বিভিন্ন কাজে আপনার জীবনটি একটু কঠিক হয়ে গিয়েছে এবং এসব নিয়ে আপনি বিষন্নতায় ভুগছেন, তাই কি ?গ্রাহক, আমি বুঝতে পারছি আপনার ex-girlfriend আপনার জীবনে toxic ছিল। তাই তার সাথে সব রকম যোগাযোগ কোরাটি উত্তম হবে, চাইলে আপনি social media account, ইমেইল এবং ফোন নম্বর সব বদলে নতুন করে শুরু করার চেষ্টা করতে পারেন।  নিচের কিছু টিপস আপনি ফলো করতে পারেন :১. বিশ্বাসযোগ্য কারো সাথে আপনার মনের কথা গুলো খুলে বলতে পারেন। ২. এমন কোন কাজ করতে পারেন যেটি আপনার ভালো লাগে এবং আপনাকে ব্যাস্ত রাখবে। এছাড়াও আপনি কোনও সংস্থার সাথে ভলান্টিয়ার হিসেবে কাজ করতে পারেন। ৩. আপনার সামাজিক কার্যক্রমও বাড়ানোর চেষ্টা করতে পারেন। ৪. কাছের কারো সাথে কোথাও ঘুরে আসতে পারেন। ৫. আপনার অনুভূতিগুলো একটি ডায়েরিতে লিখতে পারেন। ৬. নিজের সেল্ফ-কেয়ার এর ব্যাপারেও একটু ভেবে দেখতে পারেন। এমন কিছু করেন যেটি করলে আপনার রিলাক্সড মনে হবে। আপনি মেডিটেশন করতে পারেন. https://www.youtube.com/watch?v=-MOXDi_hWUk৭. আপনি একজন counselling psychologist-এর কাছে যেতে পারেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। ধন্যবাদ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও