আমি একটি মানসিক সমস্যায় ভুগছি আমার বয়স ১৭ যখন আমি ৫ম শ্রেনিতে পড়তাম তখন থেকে আমরা কাকুর বাসায় ছিলাম পরে এস এস সি পাশ করে মেসে উঠি আমার কাকুর বাসায় আমার এক দুর সম্পর্কের বোন থাকত তারা অবৈধ যৌনমিলন করতো প্রথমে আমি বুঝতে না পারলেও ৮ম শ্রেনীতে যখন পড়ি এবং এ বিষয় এ বুঝি তখন তারা প্রায়শই যৌনমিলন করতো যা আমি বহুবার জানালার ফাকে নিজ চোখে দেখেছি তবে ৯ম শ্রেনীতে তারা আমি বাসায় থাকলে এই কাজ করতে না বরং আমাকে দোকানে বা কাজে পাঠাতো সমস্যা এই মেয়েটিকে নিয়ে তার সাথে আমার যদি কথা কাটাকাটি হতো তবে আমার কাকু আমার মারতো আগে সে আমার নামে বিচার দিয়ে শারিরিক টর্চার করতো তবে ইদানিং তাদের বাসায় না থাকার পরও যবতিয় কাজে আমায় ডাকে এবং জোরপুর্বক আসতে হয় কাজের মধ্যে ঐ মেয়েরই কাজ বেশি থাকে তাই আমি মানসিক ভাবে ভোঙ এ পড়েছি মাঝে মাঝেমনে হয় তাদের এই কাজ সবাইকে যণিয়ে দেই এখন আমি কি করবো

প্রিয় গ্রাহক আপনার মনের কথাগুলো আমাদের বলার জন্য ধন্যবাদ।গ্রাহক আমি অনুভব করতে পারছি যে আপনি খুব প্রতিকূল একটা পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন।আপনি হয়তো এমন একটি অবস্থার মধ্যে আছেন যে না পারছেন প্রতিবাদ করতে না পারছেন মেনে নিতে।এরকম পরস্থিতি আসলেই খুব কষ্টদায়ক।গ্রাহক কেউ যদি অন্যায় করে আর তা যদি আপনাকে মানসিকভাবে কষ্ট দেয় তবে নিজের মধ্যে প্রতিবাদ করার মানসিকতা গড়ে তুলা যায় কিনা ভেবে দেখা যায় কি।আপনি যে নিরবে মেনে নিচ্ছেন তা কিন্তু আপনাকেই কষ্ট দিচ্ছে অথচ যারা অন্যায় করছে তারা কিন্তু কোন কষ্ট পাচ্ছে না। অথচ আপনি অন্যায় না করেও মানসিক কষ্টে ভুগছেন।তাই পরিস্থিতিটা এড়ানো যায় কিনা তা ভেবে দেখতে পারেন।প্রয়োজনে আপনার পরিবারের সাহায্য নেয়া যায় কি?তাদের যদি সরাসরি না বলতে পারেন তবে ইঙ্গিত দিয়ে বুঝিয়ে বলতে পারেন যে আপনি কাকুর বাসায় যেতে চান না।বা আপনার কাকু যখন ডাকবে তাকে ইঙ্গিতে বুঝাতে পারেন যে আপনি তাদের এই বিষয়োগুলো জানেন ও বার বার তার কাজের জন্য যাওয়া আপনি পছন্দ করছেন না।গ্রাহক প্রয়োজনে আমাদের মধ্যে না বলার কৌশল অর্জন করার প্রয়োজন পরে। তা না করতে পারলে মানসিক কষ্ট পেতে হয়।না করা খারাপ না বরং নিজের প্রয়োজনে না করতে পারলে তা আপনাকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখতে সহায়তা করবে।কেউ আপনার প্রতি খুব বেশি উপকারী হলেও তার যেকোন অন্যায় আচরণ যে আপনাকে নিরবে সহ্য করে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে হবে এমনটা কিন্তু না।তার বিপদে সাহায্য করেও আপনি তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে পারেন।গ্রাহক বিষয়গুলি ভেবে দেখতে পারেন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।ধন্যবাদ।মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও