আমি মেয়ে, বয়স ২৬।ছোটবেলা থেকে প্রেমবিরোধী আর পুরুষবিদ্বেষী ছিলাম।কিন্তু দেড়বছর আগে একটা ছেলে আমাকে প্রপোজ করে আর আমি কোনো ভনিতা না করে ফিরিয়ে দেই,কিন্তু সে নাছোড়বান্দা ছিলো আর একপর্যায়ে একবছর পর আমি রাজি হই আমার পরিবারের সম্মতি নিয়ে।কিন্তু তার আবেগগন কথা, হাতধরা এসব সহ্য করতে পারতাম না, তখন ব্যাপক বাজে ব্যাবহার করতাম,কথা বন্ধ করে দিতাম।এখন অাগের দোষগুলো তুলে সে আর আমার সাথে কথা বলে না,কোনো কন্টাক্টওও রাখে।আমি আমার ব্যাবহারেরর জন্য ক্ষমাও চাইছি বহুবার।সে আর ফিরে আসেনি।আমি তাকে খুব ভালোবাসি,এখনও ওর জন্য কাঁদি।অপমানে জীবনে বিয়ে না করার সিদ্ধান্তও নিয়েছি,কারণ আমার পরিবারও জানে,আমি একজনকে পছন্দ করি।ব্যাপক হতাশায় ভুগি।আমার এখন করণীয় কি? মায়া আপার সাহায্য কাম্য..

প্রিয় গ্রাহক, আপনার ব্যক্তিগত বিষয়টি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।আপনার বিষয়টি বুঝতে চেষ্টা করছি। ভালোবাসা আমাদের ইতিবাচক এবং স্বাভাবিক একটি আবেগ। প্রিয় এবং কাছের মানুষদের সাথে আমরা মানসিক এবং শারীরিকভাবে আমাদের ইতিবাচক আবেগগুলো শেয়ার করি। গ্রাহক, আপনার বর্তমান অনুভূতিগুলো বা মনের কথাগুলো কি তাকে জানানো যায়? আপনি যে আপনার আচরণের জন্য মনে মনে কষ্ট পাচ্ছেন এটি কি তাকে বলা যায় সরাসরি? বা সম্ভব হলে আপনার মনের কথাগুলো, আপনি যে সেই আচরণের জন্য কষ্ট পাচ্ছেন বা সরি ফিল করছেন এগুলো সুন্দর করে গুছিয়ে লিখে চিঠি বা মেইলের মাধ্যমে তাকে জানানো সম্ভব কি?মিউচুয়াল কোন ফ্রেন্ডের সাহায্য কি নেয়া যায় এক্ষেত্রে?গ্রাহক, আমরা অনেক সময়ই অনেক কাজ ইমোশোনালি বা উত্তেজিত অবস্থায় করে ফেলি পরে নিজের কাজ বা আচরণের জন্য খারাপ ফিল করি। এটি কিন্তু স্বাভাবিক। আপনি যে এটি ফিল করছেন তা কিন্তু ইতিবাচক একটি ব্যাপার।আপনার ভালোবাসার কথাগুলো, আপনার ফিলিংসগুলো তাকে সুন্দর করে গুছিয়ে লিখে জানাতে পারেন।গ্রাহক, আমাদের লাইফে প্রেম হওয়াটা যেমন খুব সুন্দর একটি অনুভূতির ঘটনা তেমনি ব্রেকআপ হলে বা নেতিবাচক কোন অভিঙ্গতা হলে আমাদের খুব কষ্ট হয়। কিন্তু একটা সময় পর কিন্তু আমরা সেই অনেক মন খারাপ হওয়া কষ্টের পরিস্থিতিগুলো ইতিবাচক ভাবে পার করতে পারি। আমাদের সবার মধ্যেই কম বেশি সেই সক্ষমতা রয়েছে। আপনার মধ্যেও রয়েছে। তবে এরজন্য নিজেকে কিছুটা সময় দিতে হয়।আপনার মনের কথাগুলো শোনার পরও যদি সে ইতিবাচক ভাবে সাড়া না দেয় তাতেও ভেঙে পরবেন না। আপনার যেমন ভালো লাগা বা পছন্দ রয়েছে এবং তা পরিবর্তনশীল তেমনি তারও ভালো লাগা বা পছন্দ হয়ত পরিবর্তন হতে পারে, তাই না? একজন সংবেদনশীল মানুষ হিসেবে তার মতামতকেও আপনার সম্মান জানানো উচিত হবে, তাই নয় কি?আপনার পটেনশিয়ালিটি, সৃষ্টিশীলতা দিয়ে আপনি কিন্তু চাইলেই এই বিষয়গুলো ইতিবাচকভাবে কাটিয়ে উঠতে পারেন।নিজের উপর আস্থা রাখুন। আশা করি ইতিবাচকভাবেই আপনি এ বিষয়টি অভারকাম করতে পারবেন। আর কেউ যদি আপনার ফিলিংসগুলো বুঝতে না পারে তার সব দায় নিশ্চই আপনার না, তাই না? আশা কছি আপনার পছন্দের কারো সাথেই আপনার সম্পর্ক হবে।আপনার আরো কোন প্রশ্ন থাকলে সেটিও আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। মায়া আপনার সাথে আছে সবসময়।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও