কতদিন ধরে আপনার এই সমস্যা হচ্ছে ? অনেকের ই ঠোঁট ফাটার সমস্যা থাকে।এই ঠোঁট ফাটা সারানোর কিছু ঘারোয়া উপায় :- - মধু-ভ্যাসলিন: মধুতে ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধী উপাদান আছে। ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জেলি ত্বককে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করে নরম রাখে। তাই মধু ও ভ্যাসলিন মিশিয়ে মাখলে ঠোঁট ফাটার উপশম হবে।- ঘৃতকুমারী: এটি শুধু ত্বকের জন্য উপকারী নয়; ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে এবং ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। এতে যে প্রাকৃতিক উপাদান আছে, তা নিয়মিত ঠোঁটের সংস্পর্শে এলে ঠোঁট ফাটা সারে।- অলিভ অয়েল: এটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার ও লুব্রিকেন্ট। এতে যে ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, তা ত্বকের শুষ্কতা দূর ও ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। দিনে দুবার ঠোঁটে অলিভ অয়েল মাখলে ঠোঁট নরম ও মসৃণ হয়।- নারকেল তেল: ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে দীর্ঘদিন ধরেই নারকেল তেলের ব্যবহার দেখা যায়। এতে প্রচুর পরিমাণ ফ্যাটি অ্যাসিড আছে, যা ঠোঁটের শুষ্কতা দূর করে। ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে নিয়মিত নারকেল তেল লাগাতে পারেন।- মধু ও গোলাপ জল : খুব তাড়াতাড়ি ঠোঁট ফাটা কমায় এবং তাকে করে তোলে নরম ও পেলব । এক চা চামচ মধু ও এক চা চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে নিন । ঠোঁটে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন । তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন । দিনে অন্তত চারবার এই মিশ্রণটি ঠোঁটে লাগানোর চেষ্টা করুন ।-   জোজোবা অয়েল : দিনে অন্তত দুবার জোজোবা তেল ঠোঁটে লাগান । ১৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন । ঠোঁট ফাটা তো কমবেই তার সঙ্গে ঠোঁটের লালচে আভা আবার ফিরে আসবে ।- গ্রিন টি ব্যাগ : অনেকেই জানেন না গ্রিন টি ব্যাগ খুব ভালো ময়শ্চারাইজারের কাজ করে । এবং খুব সহজেই এটা ব্যবহার ও করতে পারবেন । একটা ব্যবহৃত টি ব্যাগ নিন এবং ঠোঁট দিয়ে চেপে ধরুন । এইভাবে চার মিনিট রেখে দিন । দিনে একবার করে করলেই হবে ।-  লেবুর রস : নরম ও পেলব ঠোঁট খুব সহজেই পাবেন লেবুর রস লাগিয়ে এছাড়া নিয়মিত লেবুর রস লাগালে ঠোঁটের বয়েস বাড়বে না । এছাড়াও কালো ছোপ ও মিটে যাবে । এক চা চামচ দুধের সর ও তিন ফোঁটা লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন । মিশ্রণটা ফ্রিজে রেখে দিন । রোজ রাতে শুতে যাওয়ার আগে এই মিশ্রণটা লাগিয়ে নিন । সুফল পাওয়ার জন্য অন্তত তিন দিন অপেক্ষা করুন ।- চিনি : ঠোঁটের শুকনো চামড়া চিনির সাহায্যে এক্সফলিয়েট করে তুলে ফেলুন । নিয়মিত এক্সফলিয়েট করলে ঠোঁট নরম হবে । সামান্য চিনি আর অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন । এরপর হাল্কা করে ঠোঁটের ওপর ঘষতে থাকুন । ১০ মিনিট করার পর হাল্কা গরম জল দিয়ে ঠোঁট ধুয়ে ফেলুন।- মিল্ক ক্রিম : মিল্ক ক্রিম বা দুধের সর লাগালেও খুব সহজে ঠোঁট ফাটা সেরে যায় । তাজা দুধের সর নিয়ে ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন । এরপর হাল্কা গরম জলে তুলো ভিজিয়ে নিন এবং আলতো করে ঠোঁট মুছে নিন ।-  শশা : এক টুকরো শশা নিয়ে ভালো করে তা ঠোঁটের ওপর হাল্কা করে ঘষুন । ১৫ থেকে ২০ মিনিট শশার রস ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন । দিনে যতবার খুশি শশার রস লাগাতে পারেন ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও