প্রিয় গ্রাহক,আপনাকে ধন্যবাদ আপনার প্রশ্নের জন্য। প্রেগন্যান্সির সময় মানসিক সমস্যা এবং প্রতিকার জানতে চেয়েছেন, তাই কি? প্রতিটি মানুষ আলাদা তাই শারীরিক এবং মানসিক সুস্থতা এবং অসুস্থার কারণ এবং তার প্রতিকার ভিন্ন হয়ে থাকে। আমাকে কি জানাবেন, আপনি কি কারণে এ বিষয়ে জানতে চাইছেন? নানা কারণে এই সময় মানসিক অসুস্থতা দেখা দিতে পারে। যেমনঃ - প্রসবোত্তর মায়েদের মস্তিষ্কের নিউরনে পরিবর্তন। - মা যদি আগে মানসিকভাবে অসুস্থ থাকেন। - অল্প বয়সে মা হওয়া। - পরিবারের মায়ের মানসিক অসুস্থতার ইতিহাস থাকলে। - সদ্যজাত সন্তানের যত্নের ব্যাপারে মায়ের ওপর চাপ। - মানসিক চাপ। - প্রথম সন্তান ছেলে না হওয়ায় পরিবারের বয়স্কদের তির্যক কথাবার্তা। - দাম্পত্য অশান্তি,কলহ ইত্যাদি।এখন যেভাবে বুঝবেন কেউ এ সময় মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। যেমনঃ- অস্থির ও মনমরা থাকা। - অযথা কান্নাকাটি করা। - খেতে না চাওয়া বা পরিমাণে বেশী খেতে চাওয়া। - কম ঘুমানো বা ঘুমের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া। - উদ্যমহীন হয়ে পড়া। - অতিরিক্ত চিৎকার, চেঁচামেচি করা। - হঠাৎ হঠাৎ ভুলে যাওয়া। - বন্ধু ও পরিবার থেকে নিজেকে দূরে রাখা। - সিদ্ধান্ত গ্রহণে বিলম্ব। - সবসময় নিজেকে অপরাধী ভাবা। - ঘনঘন মাথাব্যথা ও পেটে নানা সমস্যা দেখা দেয়া ইত্যাদি।প্রসব-পরবর্তী মানসিক সুস্থতার জন্য করণীয়* একেবারে ঘরের কোণে বসে না থেকে মাঝে মাঝে শিশুকে নিয়ে ছাদে বা বারান্দায় খোলা বাতাসে, সূর্যের আলোতে গিয়ে বসুন। সন্তানকে নিয়ে সূর্যালোক উপভোগ করুন। এ সময়টা সন্তানের সঙ্গে একান্তই আপনার।* বন্ধু-বান্ধব, পরিজন এবং আপনি, সঙ্গ পছন্দ করেন এ রকম ব্যক্তিদের সঙ্গে সময় কাটানোর চেষ্টা করুন।* নিজের বিশ্রামের জন্য সময় ভাগ করে নিন। প্রতিদিন নিজের জন্য কিছু সময় বের করার চেষ্টা করুন। বিশ্রামের এ সময়টিতে শিশুকে বড় কারো দায়িত্বে দিয়ে রাখুন। অনেক সময় শিশুর সঙ্গে রাত জাগতে হয় বলে দিনের বেলায় মায়ের ঘুম অত্যন্ত জরুরি। এ সময়টুকু নিজেকে বের করে নিতে হবে।* নিজের বিশ্রামের জন্য সময় ভাগ করে নিন। প্রতিদিন নিজের জন্য কিছু সময় বের করার চেষ্টা করুন। বিশ্রামের এ সময়টিতে শিশুকে বড় কারো দায়িত্বে দিয়ে রাখুন। অনেক সময় শিশুর সঙ্গে রাত জাগতে হয় বলে দিনের বেলায় মায়ের ঘুম অত্যন্ত জরুরি। এ সময়টুকু নিজেকে বের করে নিতে হবে। ইত্যাদি।ধন্যবাদ আপনাকে।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও