প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। এ সময় কোন ঔষধ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া সেবন করা উচিত নয়।গর্ভাবস্থায় হরমোনজনিত পরিবর্তনের কারণে মায়ের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। সাধারণত সর্দি লাগলে বিশ্রাম নিলেই তা সেরে যায়। কিন্তু ভাইরাসজনিত সর্দি লাগলে গর্ভবতী মায়ের জ্বর হতে পারে। এমনকি ফুসফুসে প্রদাহও হতে পারে। তাই এই সময়ে একটু বেশি সাবধান থাকতে হয়।মায়ের শরীর খারাপ হওয়ার সঙ্গে গর্ভের শিশুর শারীরিক গঠনেরও ক্ষতি হতে পারে। তাই সর্দি-কাশি এক সপ্তাহের মধ্যেই কোনো ওষুধ ছাড়াই নিজে নিজেই ভালো হয়ে যায়। ওষুধ গ্রহণের আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নিতে হবে।গর্ভবতী মায়ের সর্দি-কাশি নিরাময়ের কিছু ঘরোয়া উপায়-১। বিশ্রাম নিতে হবেগর্ভাবস্থায় মায়ের ঠাণ্ডা, সর্দি-কাশির সমস্যা হলে একবারে অবহেলা করা যাবে না। কারণ এই সর্দি-কাশি থেকে বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে হবে।২। ফুটন্ত পানির ভাপ নেয়াসর্দি-কাশির সমস্যা হলে গামলায় ফুটন্ত গরম পানির ভাপ মুখে নিন। নাক বন্ধ হলে ড্রব দেওয়া যেতে পারে।৩। গরম পানি দিয়ে গড়গড়াঠাণ্ডা লাগলে কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করা যেতে পারে। এ ভেতরে কফ থাকলে পরিষ্কার হয়ে যাবে। প্রতিদিন কমপক্ষে দুই থেকে তিনবার গড়গড়া করলে গলাব্যথা ও খুসখুসে ভাব কমে যাবে। এ ছাড়া গরম পানির মধ্যে লবঙ্গ অথবা আদা কুচি মেশানো যেতে পারে।৪। আদা চা পান করুনসর্দি-কাশি ও গলাব্যথায় আদা চা খুবই কার্যকর। আদা চায়ের নানা রকম ভেষজ গুণ রয়েছে। ফলে এ চা ঠাণ্ডা লাগা কিংবা অস্বস্তি থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যায়।৫। মধু খেতে পারেনসর্দি-কাশি সারাতে মধু ভালো কাজ করে। সকালে কুসুম কুসুম গরম পানির সঙ্গে মধু মিশিয়ে খাওয়া যেতে পারে। চায়ের সঙ্গে মধু মিশিয়ে এবং লেবু ও মধু একসঙ্গেও খাওয়া যায়। এতেও ভালো ফল পাওয়া যায়।৬। বেশি বেশি পানি পানগর্ভাবস্থায় বেশি করে বিশুদ্ধ পানি পান করুন। এত আপনার শরীর ভালো থাকবে।৭। পুষ্টিকর খাবারগর্ভাবস্থায় মায়ের পুষ্টিকর খাবার খাওয়া জরুরি। গর্ভাবস্থায় ওষুধ কম খাওয়া ভালো। ওষুধ গ্রহণের আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।প্রেগনেন্সিতে যে সকল উপসর্গ দেখলে দেরী না করে হাসপাতালে ভর্তি হবেন, তা হলোঃ১। জ্বর আসলে।২। খিঁচুনি বা অজ্ঞান হয়ে গেলে।৩। যোনিপথে রক্তপাত হলে।৪।মাথা-ব্যাথা, চোখে ঝাপসা দেখলে।৫। খুব বেশি পেট ব্যাথা হলে।৬। শ্বাস-কষ্ট হলে। আপনার ও আপনার অনাগত সন্তানের জন্য আমাদের শুভ কামনা রইলো।ভালো থাকবেন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আপনার আর কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাবেন।পাশে আছি সবসময়, মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও