সম্মানিত গ্রাহক আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।আপনি সন্তানের প্রতি বেশ সচেতন যা খুবই আশাব্যঞ্জক।সেকি কি স্বাভাবিক বাচ্চাদের চেয়ে আলাদা বলে মনে হয়? কি বিষয় নিয়ে রাগ করে তাকি বলা যায়? আর সন্তানকে সুস্থভাবে লালন পালন করতে অভিভাবক হিসাবে আপনি যা করতে পারেন তা হল  সন্তানের জন্য একটা দৈনন্দিন রুটিন তৈরি করুন এবং সেই অনুযায়ী পরিচালিত করুন। সন্তানের ভালো কাজে প্রশংসা করুন, প্রশংসা সন্তানকে ভালো কাজে উৎসাহিত করে এবং আত্নবিশ্বাসী করে তুলে। সন্তানের সামনে অন্যের সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকুন এবং সন্তানকে সবার সামনে সমালোচনা করবেননা। সন্তানের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্হ্যের যত্ন নিন।শারীরিক ও মানসিক  আঘাত থেকে বিরত থেকে স্নেহ ভালবাসা দিয়ে তাকে উৎসাহীত করুন।আর সন্তানেকে কার সাথে তুলনা করবেননা। সন্তানকে সময় দিন ও নিয়মিত খেলাধুলা করতে উৎসাহীত করুন তাহলে সে শারীরিক ও মানসিক ভাবে সুস্থ হবে। রাগের পরিবর্তে তার ভালো আচরণে মনোযোগ দিন ও প্রশংসা করুন। ভালো আচরনের প্রশংসা করতে মনোযোগ ও প্রশংসা পাওয়ার জন্য সে বারবার ভালো আচরণ করবে। এই টিপ্সগুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন। তাকে একজন এডুকেশনাল সাইকোলজিস্ট দেখাতে পারেন কি ভেবে দেখা যায়? আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে করতে পারেন। মায়া আপনার পাশে রয়েছে সবসময়।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও