প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার বয়স কত ? আপনি কি এরজন্য কোন চিকিৎসক এর পরামর্শ নিয়ে নিশ্চিত হয়েছেন যে আপনার সায়াটিকা আছে? আমাদের জানান। সাধারণত কোমরের নার্ভগুলোতে চাপ পড়লে দেখা দেয় সায়াটিকা। কোমরে ব্যথা অনুভূত হয়। এ ব্যথা কোমর থেকে নিচের দিকে ছড়িয়ে পড়ে, এমনকি পায়ের পাতায়ও ব্যথা অনুভূত হয়। পা একটু ভারী ভারী লাগে, বোধশক্তি কমে যায়। বিভিন্ন কারণে এমনটি হতে পারে। কোমর ভাঁজ করে ভারী কিছু তুললে হঠাৎ করেই কোমরে তীব্র ব্যথা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া দুটি হাড়ের মাঝে যে নরম অংশ থাকে, যাকে বলা হয় ডিস্ক, সেটি পিছলে সামনে চলে এলে সায়াটিকার লক্ষণ দেখা দেয়। এ ক্ষেত্রে লক্ষণ ধীরে ধীরে দেখা দেয়। আবার মারাত্মক কিছু রোগে এমনটা হতে পারে। যেমন : ক্যানসার, হাড়ের যক্ষ্মা, স্পাইনাল কর্ডের টিউমার। তবে এগুলোর হার খুবই কম। সাধারণত বয়স কম হলে তেমন কোনো পরীক্ষার প্রয়োজন পড়ে না। তবে নিউরোলজিক্যাল কোনো লক্ষণ থাকলে কোমরের এমআরআই করার প্রয়োজন পড়ে। তাই একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে দেখানো প্রয়োজন। শতকরা ৯০ ভাগ রোগীরই খুব বেশি চিকিৎসার দরকার হয় না। ব্যথানাশক ওষুধ সেবন করলে এবং বিছানায় শুয়ে না থেকে হাঁটাচলা, কাজকর্ম শুরু করলে সমস্যা দূর হয়। সাঁতার কাটলে ব্যথা অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে তাদের কিছু জিনিস মেনে চলতে হয়। যেমন : কোমর ভাঁজ করে কোনো জিনিস ওপরে তোলা যাবে না; কাঁধের একপাশে ভারী কিছু বহন করা যাবে না; বেশি ভারী জিনিস মাথায় বহন করা যাবে না। কোমরের মাংসপেশি শক্ত করার জন্য কিছু ব্যায়াম করতে হবে। ফিজিক্যাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞরা এ ব্যাপারে আপনাকে সাহায্য করবেন। সরকারি মেডিকেল কলেজে এ বিভাগ চালু আছে। ফিজিক্যাল মেডিসিন ছাড়া অন্য কারো কাছে গেলে প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হয়। এ জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ প্রয়োজন। অস্ত্রোপচার করতে হলে দেরি না করাই ভালো। কারণ, বেশি দিন ধরে নার্ভ চাপে থাকলে আগের অবস্থায় ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কমে যায়। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও