প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।গ্রাহক,সবাই বেঁচে থাকতে চাই সুস্থভাবে। আর সুস্থ থাকার জন্য চাই সুষম খাবার, পরিমিত ভিটামিন, সঠিক খাদ্যাভাস আর চাই নিয়মিত ব্যায়াম ও কায়িক পরিশ্রম। প্রতিদিনের কাজের মাঝে আমাদের সুস্থ থাকতে হলে চাই প্রতিদিনের রুটিন মাফিক চলা। প্রথমেই আমাদের ধারণা থাকতে হবে সুস্থতার জন্য কি কি প্রয়োজন। প্রতিদিন সামনে যা পাই তাই খেয়ে ফেললে হবে না। যা শরীরের জন্য প্রয়োজন সেভাবে প্রতিদিন নিয়মমাফিক খেতে হবে। খাবার গ্রহণের পাশাপাশি আমাদের নিয়মিত ব্যায়াম ও কায়িক পরিশ্রম করতে হবে। প্রতিদিন যতটুকু ব্যায়াম প্রয়োজন ততটুকুই করতে হবে। হাঁটতে হবে। কায়িক পরিশ্রম করতে হবে।* প্রতিদিন আপনাকে ফল খেতে হবে। এসব ফলের মধ্যে প্রতিদিন আপনার ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে দেশি ফল পেয়ারা, আমড়া, কামরাঙ্গা, আমলকি, কলা, কমলা ইত্যাদি। খাদ্যাভ্যাসের মাধ্যমে প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ধরে রাখতে হবে। আর যাদের প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাদের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে।* স্বাস্থ্যকে সুরক্ষার জন্য চর্বিযুক্ত খাবার কম খেতে হবে। যেসব খাদ্য আমাদের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে যেমন_ কুল, সবুজ শাক, ব্রুকলি, ক্যানটালুপ, খয়েরি চাল এবং জলপাইয়ের তেল। খাদ্য তালিকা করুন। তালিকানুযায়ী খাবার খাওয়া হচ্ছে কি না তা খেয়াল করুন। খেতে হবে সবজি, শস্য যেমন_ মটরশুঁটি, শিম, সবুজ পাতা, মাছ ও মুরগি, যা আপনার শক্তি জোগাবে এবং রোগবালাই থেকে রক্ষা করবে।* তেলযুক্ত ও মিষ্টি খাবার নিয়মিত খাবেন না। নিয়মিত তেলযুক্ত খাবার খেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় এবং গুরুতর অসুখ হতে পারে। সুস্থতার জন্য ডেইরি উৎপাদিত খাবার ও লাল মাংস কম খেতে হবে।* ডিম কম খেতে হবে। মাংস, চর্বিযুক্ত খাবার সহজে হজম হয় না। এ ধরনের খাবার বেশি খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবে।* দু'সপ্তাহ আপনি রুটিন মাফিক খাদ্যাভ্যাস করুন। স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ করুন। আপনি অবশ্যই আপনার শারীরিক উন্নতি বুঝতে পারবেন।* সবাইকে বুঝতে হবে আপনি কতটুকু ক্যালরি গ্রহণ করবেন। অতিরিক্ত ক্যালরি আপনার স্বাস্থ্যকে সুরক্ষা করতে ব্যর্থ হবে।* প্রতিদিন দুবেলা দুকোয়া রসুন খাবেন, যা আপনার স্বাস্থ্যকে শক্তি জোগাবে। দীর্ঘদিন রসুন ব্যবহারের ফলে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে বলে ভেষজ চিকিৎসকদের ধারণা।* এন্টি-অক্সিডেন্ট বিভিন্ন রকমের রোগ প্রতিরোধ করে। যেমন_ এলার্জি, ক্যান্সার, সাধারণ ঠা-া, ফ্লু এবং হার্টের রোগ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সবুজ চা ও কালো চা এন্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে।* কিছু ঔষধি পাতা আছে, যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। এসব ঔষধি পাতা সম্পর্কে ধারণা রেখে তা খেতে হবে। এসব পাতা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। যেমন_ থানকুনি পাতা ও পুদিনা পাতা।* সপ্তাহে অন্তত চারবার হাঁটবেন। যদি আপনার শরীর ভালো থাকে তবে সপ্তাহে চারবার জগিং করবেন কমপক্ষে ৩০ মি. করে। আপনি যত কায়িক পরিশ্রম করবেন ততই আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।* যদি আপনার ব্যায়াম করার অভ্যাস না থাকে তবে আজ থেকেই অল্প অল্প করে ব্যায়াম শুরু করুন। মনে রাখবেন, ব্যায়াম শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই আপনি এর ফল পেতে শুরু করবেন।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও