প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।  গ্রাহক, গর্ভাবস্থায় যোনীপথে একটু একটু করে সব সময় তরল পদার্থ নির্গত হয়ে যদি পরিধেয় বস্ত্র ভিজে যায়। এ অবস্থা গর্ভাবস্থার ২৮ সপ্তাহের পর থেকে প্রসবের পূর্বপর্যন্ত যে কোন সময়ে হলে তাকে লিকিং মেমব্রেন বা ‘পানি ভাঙ্গা’ বলা হয়।লিকিং মেমব্রেন বা পানি ভাঙ্গার ঘটনা যদি গর্ভাবস্থায় ২৮ সপ্তাহের আগে ঘটে তখন তাকে প্রি-ম্যাচিউর লিকিং মেমব্রেন বা অপরিণত সময়ে পানি ভাঙ্গা বলা হয়। অপরিণত সময়ে পানি ভাঙ্গার কারনে নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রসব হতে পারে, যা ঝুঁকিপূর্ণ। সাধারনভাবে লিকিং মেমব্রেন হলে বা পানি ভাঙ্গলে যোনীপথে সব সময় সামান্য করে তরল আসতে থাকে যার দাগ কাপড় বা স্যানিটারী প্যাডে লাগতে পারে। নির্গত তরলের রঙ দেখার জন্য স্যানিটারী প্যাড পরখ করা জরুরি। এছাড়া আল্ট্রাসনোগ্রাম করেও এ বিষয়ে জানা যায়। সরাসরি যোনীপথে স্পেকুলাম দিয়ে পর্যবেক্ষণ করেও চিকিৎসকেরা এটা বুঝতে পারেন।যদি গর্ভাবস্থার ৩২ সপ্তাহে পানি ভাঙ্গে তবে একটু অপেক্ষা করে দেখতে হবে গর্ভবতীর অবস্থার অবনতি হচ্ছে কিনা। যদি অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে তবে প্রসবের সূচনা করতে হবে।পানি ভেংগে গেলে আপনাকে ডাক্তার এর কাছে দ্রুত যেতে হবে। সম্পুর্ন বিশ্রামে থাকতে হবে। হাঁটা চলা একদম নিষেধ। প্রস্রাব পায়খানার জন্য প্রয়োজনে বেড প্যান ব্যবহার করুন। পর্যাপ্ত পানি পান করবেন। পুষ্টিকর খাবার খাবেন। পরিস্কার প্যাড ব্যবহার করতে হবে। সহবাসে বিরত থাকবেন। পানি ভেংগে গেলে ইনফেকশন এর চান্স অনেক বেড়ে যায়। তাই আপনাকে এন্টিবায়োটিক খেতে হতে পারে। যত দ্রুত সম্ভব একজন গাইনিকোলজিস্টের শরনাপন্ন হউন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। রয়েছে পাশে সবসময়মায়া                  

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও