প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। গ্রাহক, ৬ মাস বয়স পর্যন্ত মায়ের বুকের দুধই শিশুর জন্য একমাত্র আদর্শ খাদ্য। এবং তার সকল পুস্টি চাহিদা পুরন করতে পারে।৬ মাস থেকে ১২ মাস বয়স পর্যন্ত শিশুর প্রয়োজনীয় পুষ্টির অর্ধেক চাহিদা এবং ১২ মাস থেকে ২ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুর প্রয়োজনীয় পুষ্টির এক তৃতীয়াংশ চাহিদা পূরণ হয় মায়ের দুধ থেকে। ৬ মাস বয়স পূর্ণ হওয়ার পর শুধু মায়ের দুধ শিশুর পুষ্টি চাহিদা পূরণ করতে পারে না। এ সময় ঘরের তৈরি খাবার শুরু করতে হয়। এ খাবারটি যেন পুষ্টিকর ও সহজে হজমযোগ্য হয় সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। খাবারটি যেন অতিরিক্ত পাতলা না হয় তাও দেখতে হবে। পাতলা খাবারে পুষ্টির ঘাটতি হয়। ৬ থেকে ৮ মাস বয়সের শিশুকে আধা বাটি (২৫০ মিলির বাটি) করে দিনে ২ বার, ৯ থেকে ১১ মাস বয়সের শিশুকে আধা বাটি করে দিনে ৩ বার এবং ১২ থেকে ২৩ মাস বয়সের শিশুকে এক বাটি করে দিনে ৩ বার পুষ্টিকর খাবার খেতে দিতে হবে। এছাড়া সব শিশুকে ১-২ বার পুষ্টিকর নাশতা দিতে হবে। বিস্কুট, পিঠা, সেমাই, পায়েস, ফিরনি, ক্ষীর, পুডিং, হালুয়া, ইত্যাদি নাশতা হিসেবে দেয়া যায়। খাদ্য তালিকা- শিশুকে প্রতিদিন কমপক্ষে ৪ ধরনের খাবারের প্রতি গ্রুপ থেকে ১টি খাবার খাওয়াতে হবে যেমন : ১. ভাত, রুটি, ২. ডাল, ৩. মাছ, মাংস, ডিম, ৪. শাকসবজি (যেমন মিষ্টিকুমড়া, গাজর, পেঁপে, আলু ইত্যাদি)।পরিমাণমতো তেল ও মশলা মিশিয়ে এসব খাবার দিয়ে খিচুড়ি তৈরি করে শিশুকে খাওয়াতে হবে। খিচুড়ি তৈরির সময় যে পরিমাণ চাল দেয়া হবে তার অর্ধেক পরিমাণ ডাল দিতে হবে।এছাড়া শিশুকে প্রতিদিন দুধ ও ফল খাওয়াতে হবে। শিশু যখন প্রথম বাইরের খাওয়া শুরু করে তখন একজন মায়ের এক নতুন যুদ্ধ শুরু হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে প্রথম যে বিষয় মনে রাখতে হবে তা হল খাওয়া নিয়ে শিশু কে কখনই জোর করা যাবে না। নতুন কোন অভ্যাস তৈরি করতে কিছু সময় এবং ধৈর্য ধারন করতে হয়। এর জন্য আপনি যা করতে পারেন- # খাওয়ার সময় মেনে চলতে হবে, প্রতিদিন একই সময় মেনে খাওয়াতে হবে। # শিশু যদি বুকের দুধ খায় তাহলে দুধ এবং অন্য খাওয়ার মধ্যে কিছু সময় বিরতি রাখতে হবে। # খাওয়ার সময় টিভি বা অন্য কিছু দেখিয়ে খাওয়াবেন না। # খাওয়া নিয়ে জোর করা যাবে না। তাহলে শিশুর ভীতি তৈরি হবে। একবার খেতে না চাইলে ১ ঘন্টা পর চেষ্টা করুন। #প্রথমেই এক সাথে অনেক নতুন খাবার শুরু করবেন না। নতুন কোন খাবার শুরু করলে আগেয় শিশু কে তার স্বাদ বুঝতে দিন, সেটা তে অভ্যস্ত হলে তারপর আরেকটি খাবার দিতে পারেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা । পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও