গ্রাহক, এসময় আপনি সাহরির সময় যা খেতে পারেন তা হল গর্ভাবস্থায় যাঁরা রোজা রাখতে চান, সাহরিতে তাঁরা একজন স্বাভাবিক মানুষের খাদ্যতালিকা অনুযায়ী খাবার খাবেন। তবে ক্যালরি ও আঁশযুক্ত খাবারের দিকে বেশি খেয়াল রাখতে হবে। এখন সময়টা গরমের বিধায় পানিশূন্যতা ও শরীরে লবণের পরিমাণ কমে যাওয়ার প্রবণতা বেশি হবে। সে দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। তা ছাড়া সাহরির সময় যেসব খাবারে গ্যাস হয় বা বুক জ্বালা করে, ওই খাবারগুলো এড়িয়ে চলতে হবে। মেন্যুতে আপেল, কলা, খেজুর এসব রাখুন।ইফতারের সময় খাবারকয়েকটি খেজুর, ফলের জুস, ইসুবগুলের ভুসি খেয়ে ইফতার শুরু করতে পারেন। এতে গর্ভবতী মায়ের সুগার লেভেল ঠিক থাকবে। ইফতারির মেন্যুতে লাবাং বা দুধও রাখতে পারেন। দুধ গর্ভবতীদের অ্যামোনিয়া হওয়ার প্রবণতা কমায়। এ ছাড়া সবজি, স্যুপ, সালাদের পাশাপাশি মাছ, মাংস, কলাইয়ের ডালের মতো প্রোটিনযুক্ত খাবার, বাদামি চালের ভাত এবং গমের রুটিও খেতে পারেন।সতর্কতা ও পরামর্শ► গর্ভাবস্থায় ভারি, গুরুপাক, ভাজাপোড়া, তৈলাক্ত ও বাসি খাবার সম্পূর্ণ এড়িয়ে চলুন।► ইফতার থেকে সাহরি পর্যন্ত যথেষ্ট পরিমাণে পানি পান করুন। সাহরি না খেয়ে রোজা রাখার চেষ্টা করবেন না। এতে শরীর দুর্বল হয়ে পড়বে।► আঁশযুক্ত খাবার, প্রোটিন ও ফ্যাটসম্পন্ন খাবার গ্রহণ করুন। এসব উপাদান ধীরগতিতে পরিপাক হয় বলে ক্ষুধা কম লাগবে।► খেতে পারেন পরিমিত চিনিযুক্ত ও জাউভাত জাতীয় খাবার।► রোজার সময় বেশি বিশ্রাম নিন। দুশ্চিন্তা এড়িয়ে চলুন।► বেশি সময় রোদে বা গরমে অবস্থান করবেন না। বেশির ভাগ সময় বাতাস বা খোলামেলা পরিবেশে থাকার চেষ্টা করুন।► রাতে খাবারের পর বিশ্রাম নিয়ে একটু হাঁটাহাঁটি করুন।আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়াতে জানাবেন। ধন্যবাদ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও