প্রিয় গ্রাহকআপনার বিষয়টি আমার সাথে শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। এটা খুব ভালো বিষয় যে আপনি নিজের অনুভুতির প্রতি সচেতনব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক চাপ ডিপ্রেশনের অন্যতম কারন। আপনি কি এমন কোন সমস্যা মধ্যে আছেন থাকলে তাকি আমার সাথে শেয়ার করা যায়? আর ডিপ্রেশন কাটিয়ে স্বাভাবিক জীবন জাপনের জন্য নিচের টিপস ব্যবহার করে দেখতে পারেন। ডিপ্রেশনের জন্য নিজের কষ্ট হলে কষ্টের জায়গাটি বিশ্বস্ত বন্ধুর সাথে শেয়ার করতে পারেন। অনেক সময় মনের চাপা কথা কউকে বলতে না পারার কারনে মন ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে তখন কাজে মনোযোগ দেওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। তাই মনের কথাগুল খুলে বললে মনটা হাল্কা হয়ে থাকে। নিয়োমিত হাল্কা ব্যাম করা মানুষিক স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে সাহায্য করে থাকে ফলে মানুষিক অবস্থা ইতিবাচক থাকে। পরিবার এর সাথে সময় কাটাতে পারেন আগে যে কাজ গুলো করতে ভালো লাগত সেগুলো করার চেষ্টা করতে পারেনরাগ মানুষ এর বেসিক ইমোশন। সবারই রাগ আছে। তাই রাগ হওয়া মানুষ এর খুবই সাধারণ ন্যাচার।তবে রাগকে কিভাবে প্রকাশ করা হচ্ছে সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কখন আপনার রাগ বেশি হয়?রাগ কে পজিটিভ ভাবে প্রকাশ পজিটিভ ভাবে বলতে বুঝায় অন্যের কোনো ক্ষতি না করে বা নিজের কোনো ক্ষতি না করে রাগ কে প্রকাশ করা।রাগ প্রকাশ করার জন্য সর্বপ্রথম কোন কোন ক্ষেত্রে আপনার রাগ হয় সেটা চিহ্নিত করার চেষ্টা করুন।রাগের ফলে কি অনুভূতি হচ্ছে সেটা বুঝার চেষ্টা করুন।রাগ হলে কিছু সময় নিন সেই স্থান টা থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন এ সময়ে ১-১০ পর্যন্ত গুনতে পারেন।এরপর আপনার যা বলার তা প্রকাশ করতে পারেন।গ্রাহক যদি সম্ভব হয় তাহলে তার সাথে কথা বলতে পারেন।ঠান্ডা মাথায় জানতে চাইতে পারেন যে তিনি কি কারনে এমন করছেন র কি চান।তাকে ভদ্রভাবে বুঝিয়ে বলতে পারেন এতে আপনার কি অসুবিধা হচ্ছে, আপনি কেমন বোধ করছেন আর কি হলে আপনার ভালো লাগবে। এই ভাবে কারো সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে বড় বড় ঘটনাও কোন রকম বিবাদ ছাড়াই মিটানো সম্ভব। এছাড়া আপনি ব্যাপারটি বিশ্বস্ত কারো সাথে শেয়ার করতে পারেন,তাতে আপনার মন হালকা লাগবে।আশা করি উপকৃত হয়েছেনপাশে রয়েছেমায়া

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও