গ্রাহক ধন্যবাদ প্রশ্নের জন্য।আপনি শেষ কবে চেক আপ এ গিয়েছেন?আপনার প্রেসার স্বাভাবিক আছে কিনা জানাবেন।এটী হবার কারন হল আপনার শরীরে পেশীতে অনাকাঙ্ক্ষিত সংকোচন বা হঠাৎ শক্ত হয়ে যাওয়া। এই ব্যথাগুলি গর্ভাবস্থাকালীন পায়ের পেশীতে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় হরমোনাল তারতম্য এর জন্য।এছাড়া আপনার ওজন বাড়ার কারনে তাও পায়ের শিরাতে চাপ দেয়। অনেক গর্ভবতী মহিলা তাদের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ত্রৈমাসিকের মধ্যে প্রায়শই রাতে এমন নিম্ন পায়ে খিঁচ লাগার সমস্যায় ভোগেন। ভাগ্যক্রমে, সম্ভাবনা হল এই রোগগুলি প্রসবের পরে অদৃশ্য হয়ে যাবে। এর মধ্যে, অস্বস্তি দূর করতে কিছু জিনিস আপনি করতে পারেন।আপনার গর্ভাবস্থার প্রথম দিকে, যথাযথ বিশ্রামের সাথে নিয়মিত বিকল্প সার্কুলেশন বুস্টার ব্যায়াম অনুশীলন করা (পায়ের পাতা এবং পা উপরে তোলা!),কুসুম গরম পানিতে পা ভিজিয়ে রাখা প্রতিদিন ১৫ মিনিট,ঘুমানোর সময় বালিশের উপরে পা রেখে ঘুমানো,নিয়মিত ব্যায়াম করা এবং স্ট্রেচ চেষ্টা করা,পা ছড়িয়ে আরাম করে বসা,হাঁটু এবং পায়ের জন্য একটি প্রশান্ত ম্যাসেজ সাহায্য করবে,গরম জলের বোতল দিয়ে তাপ প্রয়োগ করা,দুধ ডিম ইতাদি ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খাওয়া,অনেক সময় ধরে পা মুড়িয়ে না থাকা,কফি বা চা কম করে খাওয়া।আশা করি এগুলো করলে পায়ের ব্যাথা অনেকটা কমে আসবে।ধন্যবাদ,মায়ার সাথে থাকার জন্য।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও