হঠাৎ করে দুইদিন ধরে  ১.খুব বেশি মুড সুইং হয়ে আছে। মোটেই মুডটা ভালো করতে পারছি না।  ২.সব বিরক্ত লাগছে, একটা কথা দুইবার শুনতে পারছি না, লাউডলি কথা বলে ফেলতেছি সামান্য কারনেই, দেখতে মন চায় না পাশের মানুষকে।  ৩. মাথাটা হ্যাং হয়ে আছে অনেকটা স্লিপিং পিল খেলে যেমনটা লাগে অনেকটা তেমন। ৪. পুরো রমজানে একটা রাতও ঘুম আসে নি। আর দিনের বেলায় ৩-৪ ঘন্টা ঘুমিয়েছি। এর বেশি আর ঘুমাতে পারি নি। এটা এখন পর্যন্ত কন্টিনিউয়াস হচ্ছে। ৫. হালকা ব্রন সাথে চুল পড়াটা বেড়েছে। ৬. শরীরটা অনেক ক্লান্ত লাগে, অবসাদটা খুব করে গিলেছে আমাকে। ৭. সবকিছুতে ইচ্ছে শক্তিটা হারিয়ে ফেলেছি। ৮. খাওয়া দাওয়াতেও ইচ্ছে রুচি নেই। জানিয়ে রাখি আমার পিরিয়ডের ডেট সামনে অর্থাৎ ৮ তারিখ। যদিও জানিনা ৮ তারিখেই হবে কিনা। অনেক মাস ধরে পিরিয়ডে আপডাউন করে। তাছাড়া পিরিয়ডটাও আগের মত ক্লিয়ার হয় না। তবে পিরিয়ডে পেটে ব্যাথা অনুভব হয় নি কখনো। গত রমজানে দেড় মাসের বেবি নষ্ট করা হয়েছিল। তারপর থেকে পিরিয়ডে এই সমস্যা দেখা দিয়েছে। এটা কি প্রেগনেন্সির কারনে নাকি অন্য কোন সমস্যা?? প্লিজ একটু তাড়াতাড়ি রিপ্লে দিয়েন। মুড সুয়িংএর কারনে সুইসাইডও করতে পারি। নিজের মধ্যে বর্তমানে কোন কন্ট্রোলই হচ্ছে না।

প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।মানুষিক স্বাস্থ্য শারীরিক স্বাস্থ্যের মত গুরুত্বপুর্ন আর মন মানুষিক স্বাস্থ্যের সাথে জড়িত।  তাই মনের যত্ন নেওয়ার চেষ্টা করছেন যা খুবি ইতিবাচক। মন খারাপ থাকাই আপনি কেমন অনুভব করছন  বা আপনার কি চিন্তা হচ্ছে তা কি আমার সাথে শেয়ার করা যায়? মন খারাপ হওয়ার কারনগুলো সনাক্ত করতে পারলে মন ভালো করা সহজ হয়ে থাকে। তাই মন খারাপ হওয়ার কারনটি সনাক্ত করা যায় কিনা ভেবে দেখতে পারেন। নিজের মন ভালো রাখার জন্য নিচের টিপ অনুসরণ করা যায় কিনা ভেবে দেখতে পারেন,১. নিয়মিত নিজের ইতিবাচক চিন্তাভাবনা গুলো খাতাই লিপিবদ্ধ করার অভ্যাস করতে পারেন, ফলে আপনার দৈনন্দিন চিন্তাই ইতিবাচক ভাব প্রকাশিত হবে, যা আপনার মনকে ভালো থাকতে হেল্প করতে পারে। ২.নিজেকে অন্যের সাথে তুলনাকরা থেকে বিরত থাকুন,  কারন তুলনা মানুষের ভিতিরে ঈর্ষান্বত মনোভাব তৈরী করে থাকে। এতে মন আক্রন্ত, ফলে মনের শান্তি নষ্ট হয়। নিজের মনকে ভালো রাখতে নিজেকে অন্যে র সাথে না মেলান ভাল হতে পারে। ৩.অন্যের সফলতাকে ইতিবাচক ভাবে গ্রহণ করার অভ্যাস করতে পারেন, এতে করে আপনার মাঝে সফলতা লাভের ইচ্ছা বাড়তে পারে, যা আপনার মনকে ভাল রাখতে সাহায্য করতে পারে৪. অতি নেতিবাচক মানুষের সাথে মেশা বা ঘুরা বন্ধ করতে পারেন, কারন নেতিবাচক মানুষের সংস্পর্ষে আপনিও নেতিবাচক হয়ে যেতে পারেন।  তাই সফলদের সাথে মেশার অভ্যাস করতে পারেন।  ৬. নিয়মিত সুষম খাবার খাওয়া ও ঘুমানোর অভ্যাস করতে পারেন যা আপনার শরীর ও মনকে ভালো রাখতে পারে।৭. নিয়মিত আত্ত্ব উন্নয়নমূলক বই পড়ার, মুভি দেখার অভ্যাস করতে পারেন এতে করে আপনার মন ভালো হতে পারে।  এই টিপসগুলো  অনুসরণ করে দেখতে পারেন।৮.  নিয়মিত খেলাধুলার অভ্যাস গড়ে তোলা যাই কিনা ভেবে দেখতে পারে। কারন নিয়মিত খালাধুলা মন ভালো রাখার অক্সিজেন যোগাই। ৯.  নিয়মিত প্রার্থনা, স্বাভাবিক ব্যাম, mindfulness exercise ও মন খারাপ থাকলে প্রিয়োজনদের নিয়ে পছন্দে কথাও ঘুরে আসা মন ভালো করতে সাহায্য করে থাকে। মনভাল করার জন্য উপরের এই টিপসগুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও