প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য অনেক ধন্যবাদ এবং বিলম্বের জন্য দুঃখিত। পায়ের যথাযথ যত্নের অভাবে পায়ে দেখা দেয় নানা সমস্যা। যেমন, পা ফাটা, পা খসখসে ইত্যাদি। ক্যালসিয়াম, জিংক ও আয়রনের ঘাটতি পা ফাটার অন্যতম কারণ। মানবদেহে পানিশূন্যতার কারণে পা ফাটতে দেখা যায়।পানিশূন্যতা দূর করতে প্রতিদিন ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন।খুব বেশি গরম পানিতে গোসল, ধুলাবালি, দীর্ঘদিন ধরে পায়ের যত্নের অভাব, অপরিচ্ছন্ন জুতা পরা , অতিরিক্ত পুষ্টির অভাব। ডায়বেটিস রোগীদের স্নায়ুজনিত সমস্যা তৈরীর ফলে পায়ের আর্দ্রতা হারিয়ে ফেলে।ফলে পা ফাটা হতে পারে।পা প্রতিদিন পরিষ্কার না করা, ভ্যাসলিন বা ময়েশ্চার ব্যবহারের পরে তা সঠিকভাবে পরিষ্কার না করে আবার লোশন, ক্রিম বা ময়েশ্চার ব্যবহার করা।একটি বড় পাত্রে পায়ে সহ্য করার মতো গরম পানি নিয়ে এতে লবণ, ১০ ফোঁটা লেবুর রস , ১ টেবিল চামচ গ্লিসারিন, ১ চা চামচ গোলাপ জল নিয়ে মিশিয়ে নিন। এরপর এতে পা ডুবিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপরে পিউমিস স্টোন দিয়ে পায়ের গোড়ালি হালকা হাতে রাব করুন কয়েক মিনিট। হয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে পা ধুয়ে ভালো করে মুছে নিন। এরপরে ১ টেবিল চামচ গ্লিসারিন, ১ চা চামচ গোলাপ জল ও ২/৩ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে দুই পায়ে লাগিয়ে রাখুন সারারাত। মিশ্রণটি একটু আঠালো, তাই চাইলে সুতির মোজা পরে থাকতে পারেন। সকালে উঠে হালকা গরম পানিতে পা ধুয়ে লোশন লাগিয়ে নিন। যদি আপনার পা অনেক বেশি ফেটে গিয়ে থাকে, তাহলে লেবুর রস এভয়েড করাই ভালো।এছাড়া সপ্তাহে ২ দিন গোসলের সময় পা স্ক্রাবিং করতে হবে। এর জন্য আপনি Organikare Hand and Foot Scrub ইউজ করতে পারেন। স্ক্রাবার ইউজের পর ধুয়ে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার ইউজ করবেন। ধীরে ধীরে পা কোমল হয়ে উঠবে। আপনি ঘরে বসে অডার করতে চাইলে এই লিংকে https://shop.maya.com.bd অডার কনফার্ম করুন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোনও প্রশ্ন থাকলে,মায়াকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও