প্রিয় গ্রাহক, কিছু টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে আপনার প্রশ্নের উত্তর যথাসময়ে দিতে না পারায় আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।আপনি এখন কেমন আছেন?১/আপনাকে কিছু প্রশ্ন করতে পারি? আপনার ওজন এবং উচ্চতা কত? ফাটা দাগ গুলো কবে থেকে লক্ষ করছেন? পরিমাণে কি বেশি? তাতে কোনো ব্যথা আছে? আপনি কি কোন এক্সারসাইজ করেন?প্রশ্নগুলোর উত্তর একটু বিস্তারিত জানালে আপনাকে যথাযথ পরামর্শ দিতে আমাদের সুবিধা হবে এবং আপনি ও উপকৃত হবেন।তবে ওজনাধিক্য এবং বয়সন্ধিকালে পৌছানোর সময় মহিলাদের স্তনে,পেটে,উরুতে কিছু ফাটা দাগের সৃষ্টি হতে পারে। অল্প পরিমাণ ফাটা দাগের জন্য দুশ্চিন্তার কিছু নেই। তবে তা যেন না বাড়ে এক্ষেত্রে ওজন যতটা সম্ভব নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। আবার ওজন বেশি থাকলে তা দ্রুত কমানো হলেও এরকমটি হতে পারে। তাই ওজন আস্তে আস্তে কমাতে হবে। সাথে সাথে ঘুমের সময় ছাড়া বাকি সময় আরামদায়ক পরিষ্কার ব্রা পরিধান করে থাকতে হবে।দাগগুলো একবার হলে ত্বককে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা কঠিন। তাই প্রথম থেকেই লিপিড রেপ্লিনিশিং ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।এখন নানা রকম স্ট্রেচমার্ক ক্রিম পাওয়া যায়। এ ছাড়া নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, কোকো বাটার ব্যবহার করা যেতে পারে।গোসলের পর ও রাতে শোয়ার আগে পেট, ঊরু, কোমরে ক্রিম বা তেল ম্যাসাজ করতে হবে চক্রাকার গতিতে। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক মসৃণ হয়, স্ট্রেচমার্কের ঝুঁকি কম থাকে। অ্যাস্থেটিক ডার্মাটোলজিকাল মেডিসিনের মাধ্যমে এই ফাটা দাগ অনেকটা কমিয়ে আনা যায়। রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি, হাইফ্রিকোয়েন্সি আলট্রাসাউন্ড পদ্ধতি বেশ জনপ্রিয় এই ক্ষেত্রে। এক্ষেত্রে আপনি একজন এস্থেটিক ডার্মাটোলজিস্ট বা  চর্ম বিশেষজ্ঞ এর শরণাপন্ন হতে পারেন। এছাড়া  নিয়মিত দিনে দুইবার জায়গাটিতে বায়ো অয়েল মাসাজ করলে দাগ একটু হালকা হতে শুরু করে। তবে এক্ষেত্রে ধৈর্য ধারণ করে ব্যবহার চালিয়ে যেতে হবে।আপনি ঘরে বসেই http://shop.maya.com.bd লিঙ্কে গিয়ে খুব সহজে অনলাইনের মাধ্যমে মায়া ফার্মেসি থেকে এই বায়ো অয়েল কিনে নিতে পারেন।২/সত্যিকার অর্থে আমাদের শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় বগল এবং যৌনাঙ্গের রং কিছুটা কালচে হয়ে থাকে। এতে মন খারাপ করার কিছু নেই। আবার হস্তমৈথুন করলে বা বয়স কিছুটা বেড়ে গেলে যৌনাঙ্গের পিগমেন্টেশন স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি হতে পারে। এ কারণে কালচে ভাব বেড়ে যেতে পারে। এত হীনমন্যতায় ভোগার কিছু নেই। আপনার যৌনাঙ্গের স্বাভাবিক কার্যক্রম যদি ঠিক থাকে তাহলে এটা নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। তবে এক্ষেত্রে নিয়মিত দিনে দুইবার জায়গাটিতে বায়ো অয়েল মাসাজ করলে দাগ একটু হালকা হতে শুরু করে। তবে এক্ষেত্রে ধৈর্য ধারণ করে ব্যবহার চালিয়ে যেতে হবে।ধন্যবাদ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও