আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার রিপোর্ট টি সঠিক ভাবে লিখে জানাবেন। আপনার রিপোর্ট এর পুরো ছবি পাঠাবেন। আপনি রিপোর্ট আপনার ডাক্তারকে দেখান নি?  নাকি আপনি নিজ থেকে পরীক্ষা করেছেন শরীর ব্যাথা বলে?  বিস্তারিত জানাবেন।   গ্রাহক সাধারণত রক্তে লবণের ঘাটতি হলে বা মাংসপেশিতে রক্তপ্রবাহ কমে গেলে পা কামড়াতে পারে। সাদিন কি অনেক পরিশ্রম করেন? রোদে ঘোরাঘুরি করার ফলে শরীরে লবনের ঘাটতি তৈরি হয়। ফলে হাত পা কামড়াতে পারে। আপনার যথেষ্ট বিশ্রামের প্রয়োজন আছে। সেই সাথে প্রচুর তরল পানি খাবেন। সেই সাথে আপনাকে এক্সার্সাইজও করতে হবে নিয়মিত। অনেক ক্ষেত্রে একেবার অচল থাকার পর হটাত চলাফেরা শুরু করলেও হাত পা কামড়ায়। তবে স্বাভাবিক অবস্থায় প্যারাসিট্যামল খেতে পারেন। তবে নিয়মিত না। তাছাড়া অবশ্যই আপনার উচিৎ একজন ভালো ডাক্তার দেখিয়ে রক্ত পরীক্ষা করা। কারন এটা বড় ধরনের রোগের প্রাথমিক লক্ষণও হতে পারে।তবে পরীক্ষা করলে সঠিক তথ্য জানতে পারবেন। আপনি মাদকাসক্ত হলে অবশ্যই তা পরিত্যাগ করা উচিৎ।তবে স্বাভাবিক অবস্থায় প্যারাসিট্যামল খেতে পারেন। তবে নিয়মিত না। পানিপায়ের ব্যথা রোধ করতে গরম ও ঠাণ্ডা পানির থেরাপি খুব উপকারী। গরম পানির থেরাপির কারণে রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পায় এবং ঠাণ্ডা পানির কারণে ব্যথা দূর করে। -একটি পাত্রে কুসুম গরম পানি নিন ও অন্য একটি পাত্রে ঠাণ্ডা পানি নিন। একটি চেয়ারে বসে তারপর গরম পানির পাত্রে ৩ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। তারপর আবার ১০ সেকেন্ড ঠাণ্ডা পানিতে পা ভিজিয়ে রাখুন। -একই ভাবে ২ থেকে ৩ বার এই কাজটি করুন। -আইস প্যাক ও হট প্যাক দিয়েও একই ভাবে পায়ের ব্যথা সারাতে পারেন।ভিনেগারনানা ধরণের ঘরোয়া সমাধানেই ভিনেগার ব্যবহার করা হয়। পা ব্যথা সাড়াতেও এটি খুব উপকারী। -একটি পাত্রে কুসুম গরম পানি নিয়ে তার মধ্যে ২ চামচ ভিনেগার মিশিয়ে নিন। চাইলে আপনি সামান্য লবণও মিশিয়ে নিতে পারেন। তারপরে ২০ মিনিট পা দুবিয়ে রাখুন।বরফবরফের থেরাপি পায়ের ব্যথা কমানোর জন্য খুবই ভালো। একটি প্লাস্টিক ব্যাগে বরফের টুকরো নিয়ে ব্যথায় আক্রান্ত স্থানে সার্কুলার মোশনে ম্যাসেজ করুন। আপনি চাইলে ডিপ ফ্রিজে রেখে দেয়া কোন সবজির প্যাকেট তোয়ালেতে পেঁচিয়ে ব্যথার আক্রান্ত স্থানে ম্যাসেজ করতে পারেন। বরফের ঠাণ্ডা ভাবটি ধীরে ধীরে ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। তবে কখনোই ১০ মিনিটের বেশি বরফ ম্যাসেজ করবেন না কারণ এতে করে চামড়ার ও স্নায়ুর ক্ষতি হয়। এই ধরনের উপসর্গ দেখা দিলে দেরি না করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে এবং কারণ নির্ণয় করে চিকিৎসা নিতে হবে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও