গ্রাহক, কিছু ভিটামিনের অভাবে,হাড় ও স্নায়ুরোগে,রক্তপ্রবাহ কমে গেলে এমন হতে পারে।পুষ্টিকর খাবার,সবজি,ফলমূল,দুধ,ডিম,প্রচুর পানি খাবেন,নরম বিছানায় শুবেন না,ঠান্ডা এড়িয়ে চলুন।খুব সমস্যা হলে একজন স্নায়ুরোগের ডাক্তার দেখাবেন। রগ টান খাওয়ার কিছু কারন হলো- পানিশূন্যতা, লবণশূন্যতা, পায়ের পেশির দীর্ঘ সময় ধরে অতিরিক্ত ব্যবহার, একটি ভঙ্গিতে দীর্ঘ সময় ধরে বসে বা দাঁড়িয়ে থাকা ইত্যাদি কারণেই বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এমন সমস্যা হতে পারে। এছাড়াও ধূমপায়ীদের পায়ে রক্ত চলাচল কমে যায় বলে সামান্য হাঁটাহাঁটিতেই পায়ে টান লাগে। একই কারণে ডায়াবেটিক ও কোলেস্টেরলের রোগীদেরও পায়ে ব্যথা হয়। পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেশিয়ামের ঘাটতি পায়ে টান লাগার জন্য দায়ী। পায়ে টান লাগলে সহজ ও সাধারণ কিছু কায়দা করে খানিকটা আরাম পাওয়া যাবে। যে পেশিতে টান লেগেছে তা টানটান করে তার ওপর আস্তে আস্তে হাত দিয়ে মালিশ করুন। ধীরে ধীরে পা ভাঁজ করে আনুন। যে পায়ের পেশিতে টান পড়েছে, তার কনিষ্ঠ আঙ্গুল ওপরের দিকে টেনে ধরুন। ব্যাথা কমে যেতে শুরু করবে এবং পেশির টান চলে যাবে। এরপর ধীরে ধীরে পা সোজা করুন। শাকসবজি, ফল, দুধ, মাংস এবং খেজুর খান পর্যাপ্ত পরিমাণে খেতে হবে। এই খাবারের মধ্যে যথেষ্ট পরিমান পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম পাওয়া যায়। ধুমপানের অভ্যাস থাকলে তা বাদ দিতে হবে। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও