প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।গ্রাহক আপনার ভালোবাসার মানুষ আপনাকে অতিরিক্ত অবহেলা করেন যার জন্য আপনি তাকে বিশ্বাস করতে পারছেন না। আপনার তাকে সন্দেহ হচ্ছে। যা খুবই স্বাভাবিক।গ্রাহক আপনি যে আমাদের কাছে প্রশ্ন করেছেন এতে বুঝতে পারছি যে আপনি আপনার সম্পর্কের ব্যাপারে কতটা সচেতন যা যেকোনো সম্পর্কের ব্যাপারে একটি ইতিবাচক দিক।গ্রাহক একটি সম্পর্কের জন্য ভালোবাসা, বিশ্বাস, শ্রদ্ধাশীলতা, সততা, পারস্পরিক বোঝাপড়া এই বিষয়গুলো অপরিহার্য উপাদান।এর মধ্যে যেকোনো একটিও যদি অনুপস্থিত থাকে তবে সম্পর্কটি যেমন দীর্ঘস্থায়ী হয়না তেমনি তা দুটি মানুষকে সুখী করতে পারে না।তাই সম্পর্কে এই বিষয়গুলো নিশ্চিত করাটা খুব জরুরি।কিন্তু যেহেতু তিনি একবার আপনার বিশ্বাস ভেঙেছেন তাই আপনি সহজে তাকে বিশ্বাস করতে পারবেন না এটাই স্বাভাবিক। গ্রাহক সন্দেহপ্রবণতা মানসিকভাবে খুব কষ্ট দিয়ে থাকে।তাই তা দুর করা প্রয়োজন।আপনি নিচের কিছু বিষয় চেষ্টা করতে পারেন- * প্রথম আপনার মনের সন্দেহ কী শুধু সন্দেহ (স্বাভাবিক পর্যায়ের), নাকি তা সন্দেহ বাতিক (অসুস্থতা) তা বোঝার চেষ্টা করুন। * সুনির্দিষ্ট বাস্তব কোনো প্রমাণ না থাকলে অকারণে সন্দেহ করবেন না এবং সন্দেহমূলক প্রশ্ন করে সম্পর্কের জটিলতা বাড়াবেন না। কেননা যাকে সন্দেহ করছেন তিনি যদি সত্যিই সন্দেহের কিছু না করে থাকেন, তবে তার জন্য বিষয়টি একই সঙ্গে অপমানজনক, কষ্টকর এবং রাগের কারণ হয়ে দাঁড়াবে। * যদি সুনির্দিষ্ট বাস্তব প্রমাণ থেকে থাকে, তার পরও আরেকটু সময় নিন, বিষয়টা ভালোভাবে বোঝার চেষ্টা করুন। এক-দুটি প্রমাণের ভিত্তিতেই রিএক্ট না করার চেষ্টা করতে পারেন। * খুব ইতিবাচক পদ্ধতিতে সুন্দরভাবে স্বামী/সঙ্গীকে আপনার সন্দেহের বিষয়টি জিজ্ঞেস করুন। * যদি মনে হয় সঙ্গী আপনাকে ভুল বোঝাচ্ছেন, সব কিছু লুকাচ্ছেন, তবে দুজনের সম্মতিতে আলোচনায় বসুন। আপনি আপনার প্রমাণগুলো ইতিবাচক পদ্ধতিতে উপস্থাপন করুন। * এর পরও যদি আপনি সদুত্তর না পেয়ে থাকেন, তবে তৃতীয় পক্ষের সাহায্য নিন (যাকে আপনার সঙ্গী মেনে নিতে রাজি হবেন), এই তৃতীয় পক্ষ হতে পারে পরিবারের কোনো নিরপেক্ষ সদস্য, কোনো মুরবি্ব। আবার হতে পারেন কোনো কাউন্সিলর অথবা থেরাপিস্ট যার মধ্যবস্থতায় কোনো একটা সমাধানের দিকে যাওয়া যাবে। * সন্দেহ এর মাত্রা যদি অনেক বেশি হয় তবে অবশ্যই একজন সাইকোলজিস্ট দেখতে পারেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।ধন্যবাদ।মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও