প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার স্বামীর সাথে আপনি ভালো থাকতে পারছেন না এমন টা মনে হওয়াতে মানসিকভাবে কষ্টে আছেন তা আমি বুঝতে পারছি। নিজের বৈবাহিক জীবন, সেইসাথে নিজের ভালো থাকার প্রতি সচেতন হয়ে এখানে সাহায্য চেয়েছেন তারজন্য আন্তরিক সাধুবাদ জানাচ্ছি। গ্রাহক, আপনার বিয়ে হয়েছে কতদিন হল? আর আপনার প্রথম সন্তানের বয়স কত? আপনার স্বামী আপনার প্রতি কতটা সহানুভূতিশীল বলে আপনার মনে হয়? আশা করছি পরবর্তীতে আপনি এগুলো আরও বিস্তারিত জানিয়ে আমাদের লিখবেন যাতে আপনাকে সাহায্য করতে সুবিধা হয়। যেকোন বৈবাহিক সম্পর্ক সুন্দর ভাবে চালনা করার জন্য প্রয়োজন পারস্পরিক বোঝাপড়া, শ্রদ্ধাবোধ, ভালোবাসা, যত্ন, স্যাক্রিফাইস, কম্প্রোমাইজ, সম্মান ইত্যাদির। সংসার মানেই সেখানে দুপক্ষকেই সমান ভূমিকা রাখতে হয়। তাই আপনারা দুইজন মিলে চেষ্টা করুন সম্পর্ক টা আরও সুন্দর করে গড়ে নিতে। আপনি নিজে এক্ষেত্রে আপনার স্বামীর সাথে সম্পর্ক টি আরও জোরালো করার চেষ্টা করতে পারেন। তারজন্য আপনি আপনার স্বামীর কাছে নিজের মনের অনুভূতি গুলো তুলে ধরুন৷ তার সাথে সবকিছু শেয়ার করতে চেষ্টা করুন৷ তার ব্যস্ততা বা কাজের সময় ইত্যাদির প্রতি সম্মান রেখে নিজের খারাপ লাগাটা বা তার কাছে আপনি চাচ্ছেন তা নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করতে পারেন। দুইজন মিলে একটা সুবিধাজনক সময় ঠিক করে নিয়ে দিনের সেই সময়টিতে পরস্পরের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করুন। নেতিবাচক দিকগুলো বাদ দিয়ে ইতিবাচক সবকিছু নিয়ে কথা বলুন এবং ইতিবাচক জীবনযাপন করার অভ্যাস তৈরি করুন। কোন কারণে দ্বিমত পোষণের জায়গা সৃষ্টি হলে সেটা চেষ্টা করুন মাথা ঠান্ডা রেখে সমাধান করার। রাগারাগি ঝগড়া না করে ইতিবাচক থেকে সমস্যা গুলো সমাধান করুন। ব্যক্তি হিসেবে আপনার স্বামীর ও নিজস্ব প্রাইভেসি থাকতে পারে, সেদিকটা সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করুন। বোঝাপড়া আরও ভালো করার জন্য কোথাও ঘুরে আসতে পারেন। পাশাপাশি নিজের প্রতি যত্নশীল হোন। নিজেকে আলাদা করে সময় দিন। পরিমিত ঘুম ও বিশ্রাম নিশ্চিত করতে চেষ্টা করুন। এছাড়া নিজের ভালোলাগার কাজগুলো করতে পারেন যাতে আপনার মন ভালো থাকে৷ আপনার সার্বিক মঙ্গল কামনা করছি। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও