প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। প্রথমেই দেখতে হবে অন্য কোনো অসুখের কারণে বায়ু বেশি উৎপাদিত হচ্ছে কিনা, যদি হয়ে থাকে সেই অসুখ কমে গেলে তা এমনিতেই চলে যাবে। যদি অন্য কোনো অসুখের কারণে না হয় তাহলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই, জীবনধারা ও খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন করলে কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যায়। তার পরও কিছু জেনে রাখা ভালো_একসঙ্গে বেশি না খেয়ে প্রতিদিন অল্প অল্প করে সারা দিনের খাবার চার-পাঁচ বারে খাবেন এবং খাবারগুলো ধীরে ধীরে চিবিয়ে খাবেন। খাবারের মধ্যে যত পারেন পানি কম পান করুন।যাদের ল্যাকটোজ-জাতীয় খাবারে অসহিষ্ণুতা তারা দুধ, পনির বা ওই ধরনের ফ্যাট-জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলবেন। তবে যাদের ডায়রি প্রোডাক্টসে অসহিষ্ণুতা নেই তাদের জন্য ল্যাকটোজ-জাতীয় খাবার বরং হজমশক্তি বৃদ্ধিই করে।কিছু সালফারসমৃদ্ধ ও অাঁশযুক্ত খাবার কম খেতে হবে। যেমন_ মটরশুঁটি, ডাল, আলু, গম, বাদাম, কিশমিশ, পেঁয়াজ, রসুন, মুলা, বাঁধাকপি, ফুলকপি, ব্রকলি, স্প্রাউট ইত্যাদি।প্রচুর ফ্রুকটোস উৎপাদক কিছু খাবার যেমন_ খেজুর, মিষ্টি, কেক, বিস্কুট ইত্যাদি কম খাওয়া ভালো। (অনেকের এসব খাবার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বায়ু নির্গমন হতে থাকে)। নিয়মিত ব্যায়াম করুন, ধূমপান থেকে বিরত থাকুন।কিছু কারবনেট ড্রিঙ্ক (পেপসি, কোকাকোলা), ফ্রুট ড্রিঙ্ক, ও চুইংগাম খাবার থেকে বিরত থাকুন।কয়েক টুকরা আদা ভালোভাবে গুঁড়িয়ে সামান্য পানির সঙ্গে মিশিয়ে সেবন করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। (প্রমাণিত) অথবা এক চামচ কালিজিরা ভালোভাবে গুঁড়িয়ে এক কাপ উষ্ণ গরম পানিতে মিশিয়ে খাবারের আধা ঘণ্টা আগে সেবন করুন, দেখবেন অনেকটা ভালো ফল পাচ্ছেন। মেনথল চা দিনে তিন-চার বার পান করলেও কিছুটা উপকার পাওয়া যায়। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও