মাসিকে রক্তপাত কম হলে কিছু বিষয় দেখতে হয়, এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো বয়স, প্রথম মাসিক শুরুর বয়স, শুরু থেকেই কম ব্লিডিং হতো কিনা, এখন ব্লিডিং এর ধরন কেমন,কতদিন থাকে, দৈনিক কতটি প্যাড কি পরিমান ভিজে ইত্যাদি।কোন জন্মনিয়ন্ত্রন পদ্ধতি কেউ ব্যবহার করে থাকলে সেটি সম্পর্কেও এক্ষেত্রে জানতে হবে কতদিন ধরে কোন পদ্ধতি ব্যবহার করছেন। এছাড়াও মাসিক যদি ১৭-১৮ বছর বয়সে ( দেরি করে বয়ঃসন্ধি এলে) এমনটা হতে পারে। এছাড়া বিভিন্ন হরমোনের সমস্যা হলে, জরায়ুর আকার কোন কারণে ছোট হয়ে গেলেও এমনভাবে কম রক্ত যেতে পারে। তবে আপনি যদি কোন মানসিক চাপ বা উত্তেজনার মাঝে থাকেন তাহলেও এমনটা হতে পারে। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে মাসিকের সময় অত্যন্ত কম রক্তপাত হওয়া স্বত্তেও অনেক মহিলাই স্বাভাবিকভাবেই গর্ভধারণ করেছেন, এবং পরবর্তীতে তাঁদের কোন সমস্যা হয়নি। তাই আপনি আগে নিজের মাঝে ব্যাপারগুলো খুঁজে দেখুন, মানসিক উত্তেজনা/ চাপ থেকে দূরে থাকুন, ওজন অনেক কম বা অনেক বেশি হলে তা নিয়ন্ত্রণে আনুন। তবে যদি রক্তপাতের পরিমান হঠাৎ করেই কমে গিয়ে থাকে তবে একটি আল্ট্রাসনোগ্রাফি সহ কিছু পরীক্ষা করে দেখার প্রয়োজন হতে পারে, এক্ষেত্রে একজন গাইনী চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও