গ্রাহক আপনাকে ধন্যবাদ । গ্রাহক আপনার ওজন কি স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি ?  ওজন বেশি হলে ঘাড়ে , বগলে এধরনের কালো দাগ হয়ে থাকে এই সমস্যা কে Acanthosis Nigricans বলা হয় । ওজন কমালে কালো দাগ এমনিতেই চলে যাবে ।    ঘাড়ের কালদাগ দূর করতে নীচের জিনিস গুলো করে উপকৃত হতে পারেন ,যেমন :-* বেকিং সোডা:  ঘাড়ের কালো দাগের জন্য ঃ ২ চা চামচ নারকেল তেল,১ বা ২ চা চামচ বেকিং সোডা ,১ বা ২ চা চামচ লেবুর রস, মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করবেন ,এরপর এই প্যাক ঘাড়ে লাগিয়ে রাখবেন ১০-১৫ মিনিট পর্যন্ত। এরপর যে লেবু থেকে রস বের করেছেন ওই লেবুর খোসাটি দিয়ে ৩-৪ মিনিট আস্তে আস্তে  ঘাড়ে ঘসবেন। এসময় ঘাড় কিছুটা লাল হতে পারে যেটা ঘন্টাখানিক পরে চলে যাবে। (এই প্যাকটি মুখে ব্যাবহার করা যাবে না ) *কাঠবাদাম:  ত্বকের জন্য অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন আছে কাঠ বাদামে। এছাড়াও এতে আরো কিছু পুষ্টি উপাদান আছে যা ত্বকের কালচেভাবের সমস্যা দূর করতে পারে।-কাঠবাদাম পিষে গুঁড়ো করে নিন। ১ চা চামচ কাঠবাদামের গুঁড়ার সাথে এক চা চামচ পাউডার দুধ ও এক চা চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। পেস্টটি ঘাড়ের পাশে ও পেছনে ভালো করে লাগান। আধা ঘণ্টা রেখে দিয়ে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এইভাবে সপ্তাহে দুই থেকে চারবার লাগান।-৪/৫টি কাঠবাদাম সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে দিন। সকালে বাদামগুলো পিষে পেস্ট করে ঘাড়ে লাগিয়ে কয়েক মিনিট ধরে ম্যাসাজ করুন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে এক বা দুই দিন এটা করুন। * অ্যালোভেরা: অ্যালোভেরা চমৎকার ভাবে ত্বকের দাগ দূর করতে পারে। অ্যালোভেরা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও আরো অনেক উপকারি উপাদান সমৃদ্ধ যা ত্বকের মেরামত ও নতুন কোষ সৃষ্টিতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরার পাতা থেকে তাজা অ্যালোভেরার জেল নিয়ে ঘাড়ের ত্বকে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে প্রতিদিন এটা করুন।* শশা:  শশা পাতলা করে কেটে ঘাড়ে লাগিয়ে ম্যাসাজ করলে এক্সফলিয়েটের কাজ হয় এবং মরা চামড়া উঠে আসে। শশা থেতলে নিয়ে বা জুস করে নিয়ে ঘাড়ে লাগিয়ে কয়েক মিনিট ম্যাসাজ করে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে নিলে ঘাড়ের কালো দাগ থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যাবে।*  কমলার খোসা: কমলা চমৎকারভাবে ত্বক পরিষ্কার করতে পারে। কমলার খোসা শুকিয়ে ভালোভাবে গুঁড়ো করে নিয়ে এর সাথে দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। কালো ঘাড় থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য মিশ্রণটি ঘাড়ে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। তারপর ধুয়ে ফেলুন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি , রয়েছে পাশে সবসময় মায়া আপা। 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও