প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।গ্রাহক, প্রেগ্ন্যন্সিতে কস্টকাঠিন্য একটি কমন সমস্যা। প্রতিকার ঃগর্ভাবস্থায় সঠিক খাদ্য-তালিকা অনুযায়ী আহার করলে এই সমস্যাকে দূরে সরিয়ে রাখা যায়।বেশি পরিমান পানি পান করা। দিনে অন্ততপক্ষে ৭-৮ গ্লাস পরিশ্রুত পানীয় পানি (ফোটানো এবং ঠান্ডা) পান করা উচিত। এছাড়াও পানীয় আহার বেশি করে করা দরকার।টাটকা সবুজ শাকসবজি-ফল (আশযুক্ত খাবার) দৈনন্দিন খাদ্য-তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।হালকা গরম দুধ বা পানি পান করা।ইসবগুলের ভুসি খাওয়া।অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যাফেইন না খাওয়া (যেমন: চা, কফি)।দুগ্ধজাত খাবার খাওয়ার আগে ‘ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স’ আছে কি না পরীক্ষা করে দেখা।নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করা।মলত্যাগের চাপ চেপে না রাখা।কোনো শারীরিক সমস্যা আছে কি না তা পরীক্ষা করা। যেমন: হাইপোথাইরয়েডিজম।lদুশ্চিন্তা বা মানসিক চাপমুক্ত থাকার চেষ্টা করা।চিকিৎসকের পরামর্শদুই সপ্তাহে অবস্থায় উন্নতি না হলে, মলের সঙ্গে রক্ত গেলে, মলত্যাগের সময় ব্যথা হলে অথবা চিকন মল বের হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।কোষ্ঠকাঠিন্য নিজে খুব জটিল রোগ না হলেও এর কারণে বহু জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে। তাই আগে থেকেই সাবধান হওয়া ভালো। আর গ্রাহক, আপনার ডাক্তার কে বললে সে আপনাকে ২০ সপ্তাহের পর বিশেষ ultrasonogram করতে দিবেন যার  মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও