মায়া আপা একটু মনযোগ সহকারে পড়বেন আমার কথা গুলো..... আমার নাম অনিক  এবং আমার বয়স আগামী অগাস্ট আসলে আমার বয়স মাএ ১৯ হবে, মানে এখন ১৮ বছর ৮ মাস এইরকম ,  আমি একজন HSC student... ২০১৮ বর্তমানে আমি HSC পরীক্ষা দিচ্ছি,  আর আমি আমার পরিবারের সকল ভাই বোনের চেয়ে ও বড়, সব চাচাতো ভাই বোনদের থেকে বড়.. আমি যখন HSC 1st year(২০১৬ এর ডিসেম্বর এর ঘটনা)  এ তখন একটা মেয়ে আমার প্রতি দূর্বল হয়ে পড়ে, আমি একদিন তা জানতে ও বুজতে পারলাম, কেন জানি না তার প্রতি আমি ও দূর্বল হয়ে পড়ি! ও আচ্ছা বলে রাখি আমি হিন্দু ধর্মের ছেলে আর আমার ভালোবাসা মুসলিম ধর্মের মেয়ে। রিলেশন হওয়ার সময় এত কিছু মাথায় আসলে ও গুরুত দিই নাই। তখন ইমোশন কাজ করেছিলো  সব ক্ষেত্রে। কত ঝগড়া হয়েছে, ডেলি হয়,  অনেক ঝড় গেছে আমাদের উপর,তবুও আমরা একজনের হাতে অন্যজন ধরে আছি!  ২০১৬ ডিসেম্বর থেকে আজ ২০১৮ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত আমাদের রিলেশন এর বয়স,আজ ও আমরা একজন অন্যজন কে অনেক বেশী ভালোবাসি, কথা না বলে, দেখা না করে থাকতেই পারি না! ওর একদিন অপারেশন হয়েছিল সেদিন আমি ও ওর জন্য কান্না করতে করতে প্রায় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম,যদি ও এইটা ওকে বলিনি, কষ্ট পাবে বলে! রিলেশন এর শুরু হতে আজ পর্যন্ত জীবনের প্রতিটা সেকেন্ড এর কথা আমি তাকে না বলে থাকতেই পারি না,ওর ক্ষেএে ও একই!  আমাদের সবকিছু ঠিক আছে, তবে ঝগড়া বেশী হয়! আর আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে ধর্ম! আমাদের মাঝে কাটার দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছে ধর্ম, আমার জীবনের প্রথম প্রেম ও, এবং আমিও ওর জীবনের প্রথম প্রেম। আমার আর ওর বয়সের ডিফারেন্স ১ মাসের ও কম সময়ের! আমরা একই সাথে কোচিং কলেজ যাওয়া আসা করি! সে ও আমার মতো HSC পরীক্ষা দিচ্ছে! তার বাবা মারা গিয়েছে আজ প্রায় ৪ বছর এর মত হবে, ওর আম্মু খুবই ভালো, আমাকে নিজের ছেলের মতো দেখে, কিন্তু তিনি জানেন না আমার সাথে তার মেয়ের রিলেশন আছে, শুধু জানে আমরা বেষ্ট ফ্রেন্ড! উনার মতো আম্মু হয় না আসলেই! উনাকে আমি অনেকটা শ্রদ্ধা করি, আর উনিও আমাকে অনেক টা ভালোবাসেন। আমি আমার মা বাবা ভাইকে অনেক ভালোবাসি, ও তার মা ভাই কে অনেক ভালোবাসে! এখন প্রায় দেখা যাই ওর বিয়ের প্রস্তাব আসে!  হয়ত দেখা যাবে HSC এর পরে বিয়ে হয়ে যেতে পারে! এখন আমার সিচুয়েশন তো আপনি বুঝতেই পারছেন!! আমার পড়ালেখা হচ্ছে না, দিন দিন শরীর কেমন জানি হয়ে যাচ্ছে, শরীরে জোর পাই না! ওর কথা সারাদিন মাথায় ঘুরে, চোখ বন্ধ করে চিন্তা করি ওর যদি বিয়ে হয়ে যায় তাহলে আমার কি হবে? আমি তো বেচে থেকেই মরার মতো থাকবো! আর ওর মাথায় ও একই চিন্তা! ও যেমন আমার ভালোবাসা তেমনি আমার one an only best friend . প্রমিস করেছি আমরা - যাই হয়ে থাকুক আমাদের বন্ধুতের বন্ধন ছিন্ন হয়ে যাবে না ! এখন এই সিচুয়েশন এ আমার কি করা উচিত বলে আপনার  মনে হয়?? আমি অনেক মানসিক চাপে ও শারীরিক ভাবে দূর্বল হয়ে যাচ্ছি! ওরে ছাড়া তো বাঁচবো না!  আবার আমরা দুইজন ই চাই কারো পরিবার যেন আমাদের জন্য কষ্ট না পাই বা মান সম্মান না হারাই ! আমার এখন কি করা উচিত  ? এবং আমার ভালোবাসার মানুষটির ও কি করা উচিত বলে আপনি মনে করেন? এসব ভাবতে ভাবতে আমার পরীক্ষা খারাপ হচ্ছে! পরীক্ষায় খারাপ হলে তো শেষ জীবন, দাগ পড়ে যাবে লাইফ এ, মরেই যেতে হবে, তাহলেই সব সমস্যা একবারে শেষ! পরামর্শ দিবেন কি আমাকে  ?

প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আমাদেরকে এত সুন্দর করে আপনার ভালোবাসার কথা বলার জন্য আবারো ধন্যবাদ। আসলেই আপনারা দুইজন দুইজনকে অনেক ভালোবাসেন। আপনাদের দুইজনের ধর্ম হয়ত আপনাদের পরিবারের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে কিন্তু আপনাদের দুইজন নিশ্চই একে ওপরের ধর্ম কে অনেক শ্রদ্ধা করেন। এখন আপনারা দুইজন HSC পরীক্ষা দিচ্ছেন। এখন আপনাদের দুইজনের জন্যই পরীক্ষা কিন্তু অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আর মেয়েটির যে HSC পরীক্ষার পরই বিয়ে হয়ে যাবে এমন তো কোন কথা নেই। আজকালকার মেয়েরা সম্পূর্ণ লেখাপড়া শেষ করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তারপর বিয়ের সিদ্ধান্ত নেই। আপনার গার্লফ্রেন্ড চাইলে তার বাসায় বোঝাতে পারে যে সে এখন কি কারনে বিয়ে করতে প্রস্তুত নয়। সে মেয়ে বলে কি কারনে তাকে আগে আগে বিয়ে করতে হবে। তার নিশ্চই যোগ্যতা আছে কিছু করার। এখনই বিয়ে করলে তার সব কিছু হারিয়ে যাবে হয়ত। আপনারা এখন দুইজন মিলে আপনাদের পরীক্ষার দিকে মনযোগ দেন আপাতত। আপনাদের দুইজনের জীবনটাকে সুন্দর করে সাজাতে হবে তো। আর মেয়েটার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কেউ তাকে বিয়ে দিতে পারবে না। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও