প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। গ্রাহক,আমি কি আপনাকে কিছু প্রশ্ন করতে পারি ? আপনার বয়স কত? কত দিন ধরে আপনার সমস্যাটি হচ্ছে? স্বপ্নদোষ তাকে বলা হয় যখন আপনি ঘুমের মধ্যে যৌনভাবে জাগ্রত বোধ করেন এবং ফলে আপনার শরীর থেকে বীর্য নির্গত হয় বা আপনি ইজাকুলেট (ejaculate) করেন। স্বপ্নদোষ একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এটি কোন শারীরিক সমস্যা নয়। এটি প্রজননক্ষম জীব হিসেবে মানব প্রজাতির স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠার একটি অংশ। এটা জানা জরুরী যে একজন পুরুষের জন্য স্বপ্নদোষ খুব স্বাভাবিক ব্যাপার বিশেষত যখন তারা টিনেজ থাকে অনেক পুরুষের প্রতি রাতেই স্বপ্নদোষ হতে পারে আবার অনেকের হয়তোবা বছরে একবার কি দুইবার হয়, দুটোই স্বাভাবিক। স্বপ্নদোষ নানা কারণে হতে পারে, যেমনঃ বয়ঃসন্ধিকালে যৌন হরমোনের আধিক্যের জন্য ,স্বাভাবিকের চেয়ে অতিরিক্ত যৌন বিষয়ক চিন্তা করা, পর্ণগ্রাফি বা নীল ছবিতে আসক্ত হওয়া, যৌন উদ্দীপক বই পড়া, শয়নকালের পূর্বে যৌন বিষয়ক চিন্তা করা বা দেখা ইত্যাদি। স্বপ্নদোষ এর পর আপনার অন্ডকোষ testicle এবং পুরুষাঙ্গ penis ভালভাবে ধুবেন। যদি আপনি মনে করেন আপনার অনেক বেশী স্বপ্নদোষ হচ্ছে সেক্ষেত্রে আপনি নীচের বিষয়গুলো চেষ্টা করবেনঃ বিছানায় যাওয়ার আগে উষ্ণ পানি দিয়ে গোসল করা, কোন পর্নগ্রাফী না দেখা, শোয়ার আগে ঢিলাঢালা রাতের পোশাক পরা, ব্যায়াম করা, দুঃশ্চিন্তা কমানো এবং মেডিটেড করা।গ্রাহক গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা কমানোর জন্য শুধু ওষুধ যথেস্ট নয় , এর জন্য জীবন ধারার কিছু পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। নিচে কিছু নিয়ম দিয়া হলো যা এই সমস্যা কমাতে সাহায্য করবে , যদিও সবার জন্য একই নিয়ম হয়ত কাজ করবে না। তারপর চেস্টা করে দেখতে পারেন। # দৈনন্দিন কাজগুলো সময় মেনে করুন যেমন কাজের জন্য খাওয়া এবং ঘুমের সময় যেন প্রভাবিত না হয়। #অতিরিক্ত বেশি বা কম উভয় ওজনের মানুষের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি হয়। তাই উচ্চতা এবংবয়স অনুযায়ী যেন ওজন সাভাবিক সীমার মধ্যে থাকে #যেসকল খাবার গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা বাড়িয়ে দেয় তা যতই পছন্দের হোক এড়িয়ে চলতে হবে - তেল মশলা এবং চর্বি যুক্ত খাবার ,অতিরিক্ত চা,কফি,টক জাতীয় ফল ইত্যাদি #একসাথে অনেক খাবার না খেয়ে বার বার অল্প অল্প করে খান। #খাওয়ার ঠিক পরেই শুয়ে পরা ঠিক না। #সিগারেট এবং মদ্যপানের অভ্যাসথাকলে ত্যাগ করতে হবে। # অনেকের কিছু খাবারে এসিডিটি বেশি হয় সেগুলো বাদ দিতে হবে। #নিয়মিত খাওয়া কিছু ওষুধ যেমন প্রেসার ,পেইন কিলার,হাপানি কিছু এন্টি বায়োটিক, আইরন ট্যাবলেট ,এলার্জির ওষুধ খেলে এসিডিটি বেশি হয় , সেই রকম ক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।  আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া আপাকে জানাবেন , রয়েছে পাশে সবসময় মায়া আপা।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও