প্রিয় গ্রাহক আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনি ঐ সময় গরম খাদ্য ও পানীয়ও বেশি পান করবেন ও খাবেন , ঠাণ্ডা খাবার বা তরল ঠাণ্ডা পানীয়ও ঐ সময় না খওয়াই ভালো । গ্রিন টি পান করবেন বা আদা চা খুব উপকারী । এছাড়া তলপেটে গরম পানির ব্যাগ দিয়ে সেঁক দিবেন । গোসলের সময় যোনিপথ খুব ভালো করে , কুচকি তে গরম পানি দিবেন । তলপেটে গরম পানি ঢালবেন  সম্ভব হলে ঐ সাত দিন হাল্কা গরম পাঁইটেই গরল করবেন তবে যোনিপথ , কুচকি , তলপেটে একটু বেশি গরম পানি ঢেলে নিবেন গোসলের শেষে , যেকোনো একটা সময় ১৫-২০  মিনিট হাঁটবেন । এমনিতেও স্বাভাবিক সময় মাসিক চলাকালীন ছাড়াই দৈনিক ২-৩০ মিনিট হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলুন এতেও করেও ধীরে দহিতে এই ব্যাথ কমে জায় । সব্জি বেশি খাবেন ঐ সময় । রাতে হাল্কা গরম দুধ পান করবেন । পিঠে বা কোমরের নিচের দিকে ঘুমের সময় হট ওয়াটার ব্য্যাগ রেখে ঘুমানোর চেষ্টা করবেন , যতটুকু সময় লাগবে ঘুমানোর আগে তাতেই উপকার পাবেন , পায়ে একটি পাত্রে / বলে গরম পানি নিয়ে এতে পায়ের গোড়ালি পর্যন্তও ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখবেন রাতে ও সকালে । অতিরিক্ত ব্যাথা হলে একটি প্যরাসিটামল খেতে পারেন । এছাড়া অবশ্যই প্যাড ৩-৪ ঘণ্টা পর পর পরিবর্তন করবেন , সহবাস হতে বিরত থাকতে পারলে ভালো বা করলে কনডম ব্যবহার করবেন অবশ্যই যাতে করে কোন ইনফেকশন কারোই না হয় । পরিষ্কার পরিছন্ন হয়ে থাকবেন প্রস্রাব ও পায়খানার পরে । সুস্থ স্বাস্থ্যের কামনা রয়িল । 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও