প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।দুঃখিত গ্রাহক আপনার প্রশ্নটি দেরী করে দেয়ার জন্য।গ্রাহক আপনি কি করেন? অনেক পরিশ্রমের কোন কাজ করেন? আপনাকে কি অনেকক্ষণ বসে বা দাঁড়িয়ে থাকতে হয়? কখনো পায়ের মাংসপেশিতে আঘাত পেয়েছেন? ধূমপান বা মদ্যপানের অভ্যাস আছে? অনেক সময় কিছু ভিটামিনের অভাবে এইরকম হতে পারে যেমন ঃ ভিটামিন বি ১, বি৬ ইত্যাদি। আপনার অন্য কোন শারীরিক সমস্যা যেমন ঃ হাইপোথাইরয়েডিজম, কিডনি ফেইলিউর ইত্যাদি।গ্রাহক উপরোক্ত কোন কারণ আছে নাকি তা দেখতে হবে এবং সেই অনু্যায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।গ্রাহক আপনি নিম্নের কিছু নিয়ম মেনে চললে ভাল থাকবেনঃযে পায়ের পেশিতে টান পড়লো দ্রুত সেই পায়ের পেশিকে শিথিলায়ন বা রিলাক্স করতে হবে। এতে পেশি প্রসারিত হবে এবং আরাম পাবেন। পেশীকে প্রসারিত করার নিয়ম হল-আপনার যদি হাঁটুর নিচে পায়ের পিছনের মাসলে টান লাগে তাহলে পা সোজা করে হাত দিয়ে পায়ের আঙুলের মাথাগুলো ধরে আপনার দিকে আস্তে আস্তে টানুন। আর যদি সামনের দিকে হয় তাহলে পা ভাঁজ করে পায়ের আঙুলের মাথাগুলো পেছনের দিকে টানুন।অনেক সময় উরুর পেছনেও এমনটা হয়, তখন চিৎ হয়ে শুয়ে পা ভাঁজ করে হাটুঁ বুকের দিকে নিয়ে আসুন যতোটুকু পারা যায়। আর উরুর পেছনের পেশিতে আলতো হাতে আস্তে আস্তে মালিশ করুন আরাম পাবেন।আর যদি পেশি শক্ত হয়ে আসে তখন ওয়াটার ব্যাগ বা হট ওয়াটার  ব্যাগের মাধ্যমে কিছুক্ষণ গরম সেঁকা দিন আক্রান্ত পেশিতে। আবার যদি পেশি বেশি নরম ও ফুলে যায় আর ব্যথা থাকে তাহলে তাতে আইসব্যাগ দিয়ে ঠাণ্ডা সেঁক দিন। বেশ আরাম পাবেন। প্রত্যেকের বাসায়  ব্যথানাশক বাম বা জেল থাকে, তা দিয়ে আলতো হাতে মালিশ করা যেতে পারে ওই পেশিতে।আর ‘পেশির টানমুক্ত’ অবস্থায় ভালো থাকতে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়ামযুক্ত খাবার খান। শাকসবজি, ফল, খেজুর, দুধ ও মাংসতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাশিয়াম রয়েছে। তাই এই খাবারগুলো বেশি বেশি খান। নেশা জাতীয় বদ অভ্যাস থাকলে তা থেকেও বেরিয়ে আসতে হবে। যদি অন্য কোন শারীরিক সমস্যা থাকে তাহলে প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া আপাকে জানাবেন। রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা।

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও