আপনি যদি সত্যিই পিঠের মেদ কমাতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে মনোযোগ দিতে হবে কার্ডিও ভাস্কুলার ব্যায়ামের প্রতি। সপ্তাহে অন্তত ৫ দিন ৬০ মিনিট করে এই ব্যায়াম করতে হবে। কার্ডিও ভাস্কুলার এক্সারসাইজ হিসাবে বেছে নিতে পারেন হাঁটা, দৌড়ানো, সাঁতার ইত্যাদি। একটু একটু করে ব্যায়ামের পরিমাণ বাড়াবেন। একজন ভালো ট্রেইনারের তত্ত্বাবধানেও ব্যায়াম করতে পারেন।করতে হবে মাসল টোনিংপিঠের মাসল বা মাংস পেশীগুলো ঢিলেঢালা থাকলে আপনাকে দেখতে মোটা বেশি লাগে, পিঠেও মেদ বেশি মনে হয়। এর সমাধান হচ্ছে মাসল টোন করার ব্যায়াম করা। এই ধরণের ব্যায়াম আপনি যে কোন জিমে শিখতে পারবেন। ঘরে বসে ইউ টিউব ভিডিও দেখেও শিখতে পারবেন।যোগ ব্যায়ামউপরের দুই রকমের ভারী ব্যায়াম মেদ কমাতে সহায়ক হলেও যোগ ব্যায়ামও কমায় মেদ। এই ব্যায়াম শরীরের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে ও দেহকে শেপে আনে।খেতে হবে স্মার্ট উপায়েহার্ডকোর ডায়েট নয়, পিঠের মেদ কমাতে আপনার চাই সুষম খাবার। চর্বি জাতীয় খাবার বাদ দিন একদম। কার্বোহাইড্রেট খাবেন সামান্য। মাছ ও সবজির দিকে বেশি নজর দিন। আপনি কী খাচ্ছেন, সেটাই কিন্তু আপনার শরীরে দেখা যায়।পরতে হবে সঠিক পোশাকপিঠের মেদ চটচলদি কম দেখাতে সহায়তা করে সঠিক পোশাক। প্রথমেই বদলে ফেলুন আপনার ব্রা। এমন ব্রা বেছে নিন যা পিঠকে সাপোর্ট দেবে, বাড়তি মেদ ঢেকে রাখবে। এমন কোন পোশাক পরবেন না যেগুলো খুব টাইট। আবার পিছন থেকে অনেক বড় গলার পোশাকও পরবেন না। একটু গাঢ় রঙের পোশাক বেছে নিন, চুলগুলো খুলেই রাখুন। পিঠের মেদ ঢাকা পড়ে যাবে।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও