প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।অনেক কারনেই গলা শুকিয়ে যেতে পারে।জিভে-মুখে কোনো লালা থাকে না। প্রচণ্ড পানির পিপাসা হয়। ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা অনেক সময় উদ্বেগ কিংবা দুশ্চিন্তায় এ রকম হতে পারে। কিন্তু প্রায়ই যদি মুখ-জিহ্বা শুকিয়ে খটখটে হয়, লালা না থাকে, তবে এ রোগকে বলে জেরোস্টোমিয়া। লালার কাজ কেবল মুখ আর্দ্র রাখা নয়। খাবারের স্বাদ গ্রহণ ও হজমেও সাহায্য করে। তা ছাড়া লালা না থাকলে জিহ্বায় ঘা বা জ্বালাপোড়া হয়। দীর্ঘ সময় লালা না থাকলে মুখে, মাঢ়িতে ও দাঁতে সংক্রমণ হয়।কেন এমন হয়-* অ্যালার্জি থাকলে* উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলে* বিষণ্নতায় ভুগলে* ঘুমের ওষুধসহ প্রায় ৪০০ রকমের ওষুধে মুখে লালা নিঃসরণ কমে যায়* ডায়াবেটিস, পারকিনসন রোগ হলে* স্ট্রোকের পর, রক্তশূন্যতায় ভুগলে* হাঁপানি বা ব্রঙ্কাইটিসের রোগীরা মুখে শ্বাস নেন বলে বারবার মুখ শুকিয়ে যায়।বারবার মুখ শুকানোর প্রবণতা রোধে কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যায়। চা-কফি মুখের আর্দ্রতা কমিয়ে দেয়, তাই এগুলো বেশি খাবেন না। তামাক ও সিগারেট বন্ধ করুন। প্রচুর পানি পান করুন। চিনিহীন ক্যান্ডি বা চুইংগাম ব্যাগে রাখতে পারেন, প্রয়োজনে মুখে দিলে লালা নিঃসরণ বাড়বে। ফ্লুরাইডযুক্ত টুথপেস্ট এদের জন্য ভালো। মুখে শ্বাস নেবেন না, নাক বন্ধ থাকলে নাকে ড্রপ দিন। ঘর যথেষ্ট আর্দ্র রাখবেন, বিশেষ করে রাতে। মুখ শুকিয়ে যাওয়ার মতো কোনো রোগ থাকলে শনাক্ত করে চিকিৎসা নিন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও