গ্রাহক, এইচআইভি সংক্রমণের কারণে এইডস হয়। এইডস-এর প্রতিষেধক আজ পর্যন্ত আবিষ্কার হয়নি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যৌনমিলনের মাধ্যমে এইডস ছড়ায়। তবে এইচআইভি বিভিন্নভাবে একজনের শরীর থেকে আরেক জনের শরীরে ছড়াতে পারে। যেমন:  যার শরীরে এই ভাইরাস রয়েছে তার সাথে যেকোনো ধরনের যৌনমিলন করলে, এইচআইভি ঐ ব্যক্তির শরীর থেকে তার যৌনসঙ্গীর শরীরে ছড়িয়ে যায় যার শরীরে এইচআইভি রয়েছে তার রক্ত বা যেকোনো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অন্য কারো শরীরে দেয়া হলে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির ব্যবহার করা সুচ, সিরিঞ্জ জীবাণুমুক্ত না করে অন্য কারো শরীরে ইনজেকশন দেয়া হলে  যে সব গর্ভবতী মায়ের শরীরে এইচআইভি রয়েছে, সেই মায়ের কাছ থেকে ক) গর্ভাবস্থায় খ) প্রসবের সময় বা গ) বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় শিশুর মধ্যে এ রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারো শরীরে এইচআইভি আছে কিনা, তা বাইরে থেকে দেখে বোঝা যায় না। বাইরে থেকে তাকে দেখতে যেকোনো সুস্থ এবং স্বাভাবিক মানুষের মতো লাগে। শুধু রক্ত পরীক্ষা করে শরীরে এই ভাইরাস আছে কিনা জানা যায়। তাই দেখতে সুস্থ, স্বাস্থ্যবান মানুষ মনে হলেও তার মধ্যে এইচআইভি থাকতে পারে। তার সাথে কনডম ছাড়া যৌনমিলন করলে এই ভাইরাস যৌনসঙ্গীর শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ব্যাপারটি এরকম যে, যার শরীরে এই ভাইরাস রয়েছে সে নিজেও বুঝতে পারে না। কেননা তার তখন হয়তো কোনো সমস্যা বা অসুস্থতা নেই। যৌনমিলনের সময় তার কাছ থেকে তার যৌনসঙ্গীর শরীরে যে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে, তাও সে জানতে পারছে না। আবার তার যৌনসঙ্গীর সাথে অন্য কারোর যৌনমিলন হলে তার সঙ্গীর কাছ থেকে আবারও অন্য জনের মধ্যে এই ভাইরাস ছড়িয়ে যাচ্ছে। এভাবেই এইডসের ভাইরাস মহামারী আকারে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ছে। শুধু যৌনমিলন নয়, এই ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির ব্যবহার করা সুচ, সিরিঞ্জ দিয়ে অন্য কাউকে ইনজেকশন দিলে তা বা তার রক্ত অন্য কারোর শরীরে দেয়া হলে এই ভাইরাস অন্যের শরীরে ছড়িয়ে যায়। কিন্তু কেউ তা বুঝতে পারে না।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও