প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া ফার্মেসী

প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। গ্রাহক, আপনার ওজন আর উচ্চতা কত? আমাদের শরীরের লম্বার সঙ্গে ওজনের একটা অনুপাত থাকে,এই অনুপাতকে বডি মাস ইনডেক্স বলে BMI .যেমন ধরুন আপনার উচ্চতা আর আপনার ওজনে যদি আপনার BMI 18-24.9 হয় তালে এটা নরমাল। 18 এর কম হলে, আপনাকে ওজন বাড়াতে হবে। গ্রাহক, স্বাস্থ্যবান হওয়ার এবং ওজন বাড়ানোর জন্য আপনি কিছু জিনিস করুন : ১। চার ঘণ্টার বেশি না খেয়ে থাকবেন না: আপনার শরীর নিয়মিত খাবারের সাপ্লাই চায়। যা শরীরকে পর্যাপ্ত শক্তির যোগান দিবে। বেশি সময় খাবার না খেয়ে থাকলে শরীরে খাদ্য ঘাটতি দেখা দিতে পারে ফলে ওজন বাড়ার বদলে উল্টো কমে যেতে পারে । খালি পেটে তো কিছুতেই থাকবেন না বরং সময়মত বেশি করে খাবার খেয়ে শরীরে খাদ্য ঘাটতি পুষিয়ে ফেলুন। ২। ক্যালরি যুক্ত খাবার বেশি করে খান: প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি যুক্ত খাবার গ্রহণ করুন। যেমন: বাদাম এবং শস্যদানা, বাদামের মাখন, ডিম, সয়াবিন, কিসমিস, খেজুর, নারকেল দুধ, বাদামী চাল, ওটমিল, বাটার বা তাহিনি, দই, কলা, অলিভ অয়েল, আঙুরের জুস, আনারস, আপেল, কমলা। দুগ্ধজাত খাবার এবং উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার যথা মাছ, মাংস ইত্যাদি থাকতে হবে প্রতি বেলার খাদ্য তালিকায়। ড্রিংক হিসাবে কলা, খেজুর এর সাথে একটু মাখন, দুধ অথবা আম, পেস্তা বাদাম, স্ট্রবেরি, কমলা ইত্যাদি শ্রেষ্ঠ পুষ্টিকর উপাদান দিয়ে জুস তৈরি করে হাতের কাছে রাখুন। এগুলো আপনার শরীরের মাংস পেশীগুলোকে সুগঠিত করতে যথেষ্ট প্রোটিন সরবরাহ করবে। ৩। ঘুমাবার ঠিক আগেই দুধ ও মধু খান: রাতের বেলা ঘুমাবার আগে অবশ্যই বেশ পুষ্টিকর কিছু খাবেন। ঘুমাবার আগে প্রতিদিন এক গ্লাস ঘন দুধের মাঝে বেশ অনেকটা মধু মিশিয়ে খেয়ে নিবেন। ৪। নিয়মিত ব্যায়াম শুরু করুন: আমাদের সবার ধারণা ব্যায়াম শুধু ওজন কমানোর জন্যই কাজ করে। কিন্তু এটি ঠিক নয়। ব্যায়াম করলে শরীর একটিভ হয় এবং পুষ্টি উপাদানগুলো ঠিক মতো কাজে লাগে। ঠিক সময়ে ক্ষুধা লাগে, এবং তখন খাদ্য গ্রহণের রুচিও বৃদ্ধি পায়। প্রতিদিন হালকা কিছু ব্যায়ামই এর জন্য যথেষ্ট। ৫। পর্যাপ্ত ঘুমান ও দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন: আপনার খাদ্যাভ্যাস আর শরীর চর্চার পাশাপাশি যেই জিনিসটা লাগবে তা হলো পর্যাপ্ত ঘুম এবং দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকা। দৈনিক ৮-৯ ঘণ্টা ঘুম এবং অন্যান্য বিষয়গুলো মেনে চললে আশা করা যায় আপনার ওজন বাড়ানোর লক্ষ্য পূরণ হবেই। ব্রেনের উপর কোনো চাপ নেবেন না। ৬। প্রচুর শাক সবজি ও ফল খান অনেক ফল আর সবজি আছে যারা কিনা উচ্চ ক্যালোরি যুক্ত। যেমন- আম, কাঁঠাল, লিচু, কলা, পাকা পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলু, কাঁচা কলা ইত্যাদি। ফল ও সবজি খেলে স্বাস্থ্য ভালো থাকবে ওজন বাড়ানোর জন্য খাওয়া দাওয়ার বিশেষজ্ঞর পরামর্শ নিতে পারেন এবং তার কাছ থেকে আপনি খাদ্য তালিকা নিতে পারেন I ওজন ধীরে ধীরে বাড়ানো উচিত. এরপরও যদি ওজন না বাড়ে অথবা ওজন কমে যায় তাহলে ডাক্তার দেখানো উচিত। কতদিন ধরে আপনার সাদাস্রাবের এই সমস্যা হচ্ছে? আপনার যৌনাঙ্গে কোন চুলকানি আছে ? আপনার স্রাবে কোন দুর্গন্ধ আছে? সাদা স্রাব মেয়েদের জরায়ু তে তৈরি হয় এবং যোনি পথ দিয়ে বের হয়। এটা একটা প্রাকৃতিক উপায় যোনি পথ কে clean,healthyএবং lubricatedরাখার জন্য। সাদা স্রাব অনেক ক্ষেত্রেই নরমালি হতে পারে। সাদা স্রাব স্বাভাবিক, কিন্তু ব্যক্তি বিশেষে তা ভিন্ন হতে পারে। এর পরিমান একেক জন এর একেক রকম হয়। পিরিয়ডের শেষে এর রং বাদামী হতে পারে। পিরিয়ডের দুই সপ্তাহ আগে এবং প্রেগন্যান্সির সময এস্ট্রোজেন হরমোনের প্রভাবে এই স্রাব বেড়ে যেতে পারে। এটা স্বাভাবিক।Ovulation এর সময় এর পরিমান বেড়ে যেতে পারে। কিন্তু যদি কোন রকম দুরগন্ধ থাকে বা চুলকানি থাকে বা স্রাব এর রঙ এর কোন পরিবর্তন হয় যেমন হলুদ বা সবুজ রঙ বা ঘন সাদা স্রাব হয় এটা স্বাভাবিক নয়। সেটা infection এর লক্ষন। পরিবর্তনগুলো লক্ষ্য করেন, কেননা এগুলো ইনফেকশনের লক্ষণ — *রং এর পরিবর্তন হলুদ/সবুজ/ লাল/ঘন সাদা *বাজে গন্ধ * চুলকানো *পেলভিক পেইন যদি আপনার উপরে উল্লেখিত উপসর্গগুলোর কোন একটি থাকে তাহলে দ্রুত ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত কেননা ইনফেকশনের কারণে আপনার fertility র ক্ষতি হতে পারে। যদি আপনার উপরের কোন উপসর্গ না থাকে তাহলে আপনি সাদা স্রাব থেকে মুক্তি পেতে যা করতে পারেন তা হল- -cotton under garments পড়বেন, এতে করে আপনার skin dry থাকবে এবং skin allergy হবে না। - tight clothes পরবেন না। - আপনার যৌনাঙ্গ পরিষ্কার রাখুন এবং নিজের স্বাস্থ্য ভালো করুন । -  প্রতিবার প্রস্রাব করার পর কুসুম গরম পানি দিয়ে যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করতে হবে. - ব্যবহার করা পায়জামা ও অন্যান্য কাপড় সবসময় পরিষ্কার করে ধুয়ে ভালো মত রোদে শুকাতে হবে. আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

সমস্যা নিয়ে বসে থাকবেন না !

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রি বিশেষজ্ঞ পরামর্শ পেতে

প্রশ্ন করুন এখনই


মায়া অ্যাপে পড়ুন