প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার মেজাজ খিটখিটে থাকছে, যার জন্য আপনি চিন্তিত এটা কোনো  রোগ কিনা। আপনার চিন্তিত হওয়াটা স্বাভাবিক। গ্রাহক, আপনার বয়স কত ? সেটা জানালে ভালো হতো. সাধারণত বয়োসন্ধি (১০-২৪ বছর) কালে হরমোনাল পরিবর্তন হওয়ার কারণে মেজাজের ও পরিবর্তন হয়. এই সময় মেজাজ খিটখিটে হতে পারে। তবে এমন কিছু কি হয়েছে যার পর থেকে মেজাজ খিটখিটে হচ্ছে? আপনার অবস্থাটা আমি বুঝতে পারছি। আপনিযে সমস্যাটি নির্ণয় করতে পেরেছেন এবং তা থেকে বের হয়ে আসতে চাচ্ছেন তা খুবই প্রশংসনীয়।  যখন মেজাজ খারাপ থাকছে তখন  কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারেন, কারণ এই সময়ে আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি না. এছাড়া নিজের জন্য একটু সময় রাখতে পারেন, পছন্দের কোনো কাজ করতে পারেন। এতে আপনি রিলাক্স থাকবেন। মেজাজ ফুরফুরা থাকবে। প্রিয় গ্রাহক, আপনি কিসে পড়েন? কবে থেকে আপনার পড়ার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে গেছে? কিছু কি হয়েছে যার পর থেকে আপনার পড়তে ভাল লাগে না? আপনি পড়ার জন্য একটি দৈনিক রুটিন করতে পারেন। প্রতিদিন কতটুকু পড়বেন তার একটা লক্ষ্য পড়ার আগে ঠিক করতে পারেন। অতিরিক্ত চাপ রোধ করার জন্য আপনার কাছে যতটুকু পড়া সম্ভব হবে ততটুকু পড়তে পারেন। পড়ার ৩০ মিনিট পর পর ৫ মিনিটের ব্রেক নিতে পারেন তাহলে ব্রেন কম ক্লান্ত হবে। বুঝে বুঝে পড়তে পারেন। পড়াশোনার মাধ্যমে আমরা নতুন কিছু জানতে পারি। নতুন কিছু জানার মাঝেও অনেক আনন্দ আছে সেই আনন্দ নিয়ে পড়তে পারেন। আপনি যদি আপনার লক্ষ্য অনুযায় পড়তে পারেন তাহলে নিজেকে নিজে পুরষ্কার দিতে পারেন।  আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা । আশা করি আপনি উপকৃত হয়েছেন। মায়া আপা. 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও