স্যার দয়া করে বিরক্ত হবেন না,আপনাদের কথা মেনে চলবো। এটাই শেষ প্রশ্ন দয়া করে ভালো উওর দিবেন- আসসালামু অালাইকুৃম স্যার,অামি তানভীর,বয়স-২২ বছর,অবিবাহিত  যুবক।বি.এস.সি তে পড়াশোনা করি।এখন অামার সমস্যার কথা বলছি,দয়া করে স্যার এর সমাধান বলে দিবেন। আমার সমস্যা টা ১ বছর যাবত,এখনো ঐ সমস্যার মধ্যে অাছি,লিঙ্গ আগে সকালে প্রচুর উত্তেজিত  থাকতো ১ বছর যাবত  উথেজনা কম,লিঙ্গ মাঝে মাঝে একটু শক্ত হয়,এই নিয়ে আমি বিষন চিনতায় অাছি,, ৭/৮ বছরের হুস্তমুথুনের অভ্যাস অাছে এখনো মাসে ৩/৪ বার করা হয়,বলে রাখা ভালো ২ বছর যাবত  হুস্থুমুউথুন যখন করতাম ধরেন একদিনে ২/৩ বার করতাম , অামি অবিবাহিত,শরীরে উওেজনা কমে যাওয়ায় বিয়ে করতে ভয় করছে,অাগে পন দেখলে উথেজনা যেমন হত এখন তেমন হই না,খুব বেশি দেখতাম না হটাত দেখতাম,১ বছর যাবত এই সমস্যা গুলা মনে হচ্চে,১ বছর অাগেও এই রকম কোন সমস্যা ছিল না ,কারো সাথে শারীরিক মিলন এখনো করি নাই,মানসিক তেমন দুঃসচিনতা  নাই,তবে ১ বছর অাগে কয়েক দিন পারিবারিক দুঃসচিনতা ছিল তা অাবার কয়েক দিনের মধ্যে ঠিকও হয়ে গিয়েছিল। ৭/৮ মাস হাইপেসার এর সমস্যা ছিল ১ বছর অাগে, গত বছর বাড়ি থেকে  বিয়ে করানোর জন্য মেয়ে দেখে ফেব্রুআরি মাসে, অামি তখন রাজিও হয়,কিন্তু তার ১-২ মাস পরেই আমি নিজে নিজে মনে করি আমার মনে হই যৌন উওেজনা কমে গেছে,এর অাগে সব ঠিকই ছিল, ওই দিনের পর থেকেই প্রায় ১ বছর যাবত এই সমস্যাই পড়ে অাছি,বিয়ে করি নাই,এখন বাড়ি থেকে বলছে বিয়ে করার জন্য,একজন পরিচিত  mbbs এর কাছে গিয়েছিলাম সে বলছে, সব ঠিক হয়ে যাবে চিনতা কইরো না,এখন পরজন্ত কোন ঔষধ খায় নাই,এটা কি মানসিক সমস্যা নাকি শারীরিক??  অামি এখন কি করবো,অামি বিয়ে করলেই কি ঠিক হয়ে যাবে???, স্যার দয়া করে জানাবেন অামি খুব উপকৃত হব, (বি-দৃ) হাত দিয়ে নাড়া চাড়া তেল দিয়ে হসতমুথুন করার সময় লিংগের উওান ঘটে, বীয মোটামুটি ঘনো।

প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার এই প্রশ্নের উত্তর আগেও দেয়া হচ্ছে।  আপনার মধ্যে যে যৌন বিষয়টি নিয়ে ভয় কাজ করছে সেটা ও আপনার যৌন জীবনে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। তাই দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকতে হবে। অতিরিক্ত চিন্তার ফলে যদি আপনার দৈনন্দিন কাজে ব্যাঘাত ঘটে তবে তা আপনার জন্য ক্ষতিকর। সাধারণত মানুষ যখন কোন negative চিন্তা করে তখন সে চিন্তিত হয়ে পরে যার থেকে কোন উপকার পাওয়া যায় না। negative চিন্তার বদলে Positive চিন্তা করতে পারেন তাহলে মানসিক চাপ অনেকটা কমে যাবে এবং নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে। কোন বিষয় নিয়ে যদি অতিরিক্ত চিন্তা আসে তবে মনটাকে Divert করার জন্য আপনার অন্য কোন পছন্দের কাজ নিয়ে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারেন। অতিরিক্ত চিন্তার সময় নিজেকে relax রাখার জন্য relaxation বা deep breathing করতে পারেন। মেডিটেশন বা Relaxation হল এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে শরীরকে শিথিল করা যায়। মানসিক ভাবে প্রাশান্তি লাভ করা যায়। দুচিন্তা, আবেগ, হতাশা থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যায়। এর মাধ্যমে দীর্ঘ নিঃশ্বাস নেওয়ার ফলে মস্তিস্কে বিশুদ্ধ অক্সিজেন প্রবেশ করে মস্তিস্ককে অনেক শিথিল করে যার ফলে পরবর্তীতে আর ও ভাল ভাবে সমস্যা নিয়ে চিন্তা করা যায়। নিম্নের ভিডিও লিঙ্ক টি দেখলে আপনি মেডিটেশন বা relaxation সম্পর্কে আরও ভাল করে জানতে পারবেন। https://www.youtube.com/watch?v=Y_s_iwgvTpA আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়াকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া। 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও