প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।আপনার এই প্রশ্ন ও আগের অনেকগুলো প্রশ্নের জন্য আপনাকে কিছু পরামর্শ দিতে চেষ্টা করছি। সাদা স্রাব জনিত সমস্যা কতদিন থেকে হচ্ছে? আপনার কি চুলকানোর সাথে কোন সাদা স্রাব যায়? সেটা কি গন্ধযুক্ত? আমাদের জানাবেন। গ্রাহক সাদা স্রাব সাধারণত মেয়েদের যোনিপথ পরিষ্কার রাখার কাজ করে। যদি যোনিপথে চুলকানি্র সাথে, জ্বালাপোড়া থাকে, দুর্গন্ধ থাকে, থকথকে ঘন স্রাব হয়, তাহলে বুঝবেন আপনার কোন ইনফেকশান হয়েছে। সবচেয়ে কমন হচ্ছে vaginal candidiasis (এক ধরনের ছত্রাক সংক্রম)। সেক্ষেত্রে আপনার অবশ্যই একজন গাইনি ডাক্তারের সাথে দেখা করে anti fungal ঔষধ খেতে হবে এবং মলম লাগাতে হবে।  সাদা স্রাব যদি আপনার কাছে সমস্যা মনে হয়, তাহলে প্রথমেই কাজ হবে আপনার যৌনাঙ্গ পরিষ্কার রাখা এবং নিজের স্বাস্থ্য ভালো করা। প্রতিবার প্রস্রাব করার পর কুসুম গরম পানি দিয়ে যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করতে হবে. ব্যবহার করা পায়জামা ও অন্যান্য কাপড় সবসময় পরিষ্কার করে ধুয়ে ভালো মত রোদে শুকাতে হবে. এবং যদি উপরে উল্লেখিত বিষয় গুলো বুঝতে পারেন, তাহলে অবশ্যই একজন গাইনি ডাক্তারের সাথে দেখা করবেন সমস্যাটি নিয়ে। পরীক্ষা করে সঠিক কারন বের করে এর চিকিৎসা করা হয়।আপনার গ্যাষ্ট্রিক জনিত সমস্যা ও মলদ্বারের সমস্যার জন্য আপনি একজন গ্যাষ্ট্রো-এন্টারোলজিস্ট এর সাথে দেখা করুন। গ্যাষ্ট্রিকের জন্য ভাজাপোড়া খাবার খাবেন না। নিয়মিত ঠিক সময়ে খাবার গ্রহন করুন, বেশি পানি পান করুন। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খাদ্যতালিকা তৈরী করে প্রয়োজনে ওষুধ সেবন করুন। আপনার মাসিক বিলম্বিত হওয়ার জন্য আপনি প্রেগন্যান্ট কিনা নিশ্চিত হতে প্রেগনেন্সি কিট দিয়ে প্রস্রাব পরীক্ষা করে দেখুন বা ডাক্তারের কাছে গিয়ে রক্তে Beta HCG পরীক্ষা করে নিশ্চিত হতে পারেন। আপনি যদি ফেমিকন নিয়ম মেনে খেয়ে থাকেন তাহলে গর্ভধারনের সম্ভাবনা কম (আপনি বিস্তারিত উল্লেখ করেরন নি) । অন্য অনেক কারনে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে যেমন- খুব বেশি পরিশ্রম করা,বেশি দুঃশ্চিন্তা করলে,দ্রুত ওজন কমালে এরকম আরো অনেক কারনে। আপনি একজন গাইনি ডাক্তারের সাথে দেখা করলে আপনার সমস্যার সমাধান পাবেন।আর ওজন কমানোর জন্য কোন ওষুধ খাওয়া ঠিক নয়।প্রতিদিন ব্যায়াম করা,সুষম খাবার সময়মত গ্রহন করে,দুঃশ্চিন্তা না করে, অন্তত ৮ ঘন্টা রাতে ঘুমানো, বেশি করে পানি ও শাক সবজি খাওয়া এসব নিয়ম মেনে চলুন।ওজন মেপে তা উচ্চতার সাথে সামঞ্জস্য আছে কিনা জেনে(BMI Chart ) এর মাধ্যমে ১৮-২৫ সীমার মধ্যে না থাকলে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খাদ্যতালিকা তৈরি সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও