Popular Topics

মেন্টালি খুব অসুস্থ ফিল করছি। ডিপ্রেশন এনজাইটি আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। একটা সময় সিজোফ্রেনিয়ার রোগী ছিলাম। সুইসাইড এটেম্প করেছিলাম ২বছর আগে কোন কারন ছাড়াই। (২৭ টা সিজোফেন ১০০ খেয়ে) তখনকার তুলনায় এখন মেন্টাল অবস্থা খুব খারাপ। প্রচন্ড আশাহত লাগে, হতাশায় ভরে আছে জীবনটা। টোটালি অন্ধকারের মধ্যে আছি বর্তমানে। বয়স ২১ বছর। ট্রাষ্ট ইশ্যু আছে। কিছু সাইকোপ্যাথিক ব্যাপার কাজ করে আমার ভেতরে। তারমধ্যে সামনে অপরিচিত বা পরিচিত যে কেউই থাকলে মাথায় একটা চিন্তা আসে যে তাকে এই মুহুর্তে থাপ্পড় মারলে কি হতে পারে। এধরনের চিন্তা নিয়ে খুব ভয় হয় যে কখন নিজের অজান্তেই কাউকে থাপ্পড় দিয়ে ফেলি। ওভারথিনকিং প্রবলেমটা খুব বাড়াবাড়ি লেভেলের বেশি মনে হচ্ছে। সাধারন কোন কিছু নিয়েও আমার হাজারটা চিন্তা কাজ করে। একটা চিন্তা আরেকটা চিন্তার জন্ম দেয়। আর এটাকে পশ্রয় দেয় আমার অজানার প্রতি কৌতুহল গুলো। স্বভাবগত দিক থেকে আমি অনেক ফ্রেন্ডলি। কিন্তু কাউকে ট্রাষ্ট করতে পারি না ইভেন বাবা মা কেও ট্রাষ্ট করি না আমি। একজন আছে যাকে অনেকটা বিশ্বাস করি। বন্ধুর মত বিশ্বাস করি কিন্তু অন্ধভাবে বিশ্বাস করি না। সে আমার প্রেমিকা। অতন্ত সাধারন একটা মেয়ে। তাই অনেক কিছু বুঝে না সে। তাকে নিয়ে আমার কোন সমস্যা নেই। কাউকে নিয়েই আমার কোন সমস্যা নেই। আমার সমস্যা নিজেকে নিয়ে। লজিক ছাড়া কোনকিছু মেনে নিতে পারি না। যথেষ্ট কারন ছাড়া কাউকে বিশ্বাস করতে পারি না। আমি কি সাইকোপ্যাথ? আমার রাগ প্রচন্ড লেভেলের বেশি। এত বেশি যে রাগগুলো প্রকাশ করতে হলে চিৎকার করতে ইচ্ছে করে গলা ফাটিয়ে। স্মোকিং করি। প্রচুর স্মোকিং করি। স্মোকিং ছাড়তে পারি না। চেষ্টা করেছি নিজ থেকে পারিনি। আমার ভেতরের একটা অংশ এটা ছাড়তে দেয় না। সিগারেট না খেয়ে ১ দিন থাকতে পারি কষ্ট করে কিন্তু তখন চারপাশ মনে হয় ধীরে চলছে। মাথা ঘুরে হঠাৎ করে। হাত কাপে প্রচুর। সিগারেট ছাড়া কষ্ট হয় অনেক। সিগারেট না ছেড়ে মেন্টালি নরমাল থাকার কোন উপায় বলুন প্লিজ। কম্লিটলি স্ট্রেঞ্জারের সাথে কথা বলতে ইচ্ছে করে মেসেজিং এ।  এমন কার সাথে যার সাথে ২/৩ দিন কথা বলার পর সেই কথাগুলো টোটালি ভূলে যাবে। খুব একা লাগে ইদানীং। আবার সুইসাইডের চিন্তা মাথায় আসে হঠাৎ হঠাৎ। বাকি জীবন বেচে থাকাটা ননসেন্স আইডিয়া মনে হচ্ছে।

Answered By : AR Rahman

  1 week ago

মেন্টালি খুব অসুস্থ ফিল করছি। ডিপ্রেশন এনজাইটি আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। একটা সময় সিজোফ্রেনিয়ার রোগী ছিলাম। সুইসাইড এটেম্প করেছিলাম ২বছর আগে কোন কারন ছাড়াই। (২৭ টা সিজোফেন ১০০ খেয়ে) তখনকার তুলনায় এখন মেন্টাল অবস্থা খুব খারাপ। প্রচন্ড আশাহত লাগে, হতাশায় ভরে আছে জীবনটা। টোটালি অন্ধকারের মধ্যে আছি বর্তমানে। বয়স ২১ বছর। ট্রাষ্ট ইশ্যু আছে। কিছু সাইকোপ্যাথিক ব্যাপার কাজ করে আমার ভেতরে। তারমধ্যে সামনে অপরিচিত বা পরিচিত যে কেউই থাকলে মাথায় একটা চিন্তা আসে যে তাকে এই মুহুর্তে থাপ্পড় মারলে কি হতে পারে। এধরনের চিন্তা নিয়ে খুব ভয় হয় যে কখন নিজের অজান্তেই কাউকে থাপ্পড় দিয়ে ফেলি। ওভারথিনকিং প্রবলেমটা খুব বাড়াবাড়ি লেভেলের বেশি মনে হচ্ছে। সাধারন কোন কিছু নিয়েও আমার হাজারটা চিন্তা কাজ করে। একটা চিন্তা আরেকটা চিন্তার জন্ম দেয়। আর এটাকে পশ্রয় দেয় আমার অজানার প্রতি কৌতুহল গুলো। স্বভাবগত দিক থেকে আমি অনেক ফ্রেন্ডলি। কিন্তু কাউকে ট্রাষ্ট করতে পারি না ইভেন বাবা মা কেও ট্রাষ্ট করি না আমি। একজন আছে যাকে অনেকটা বিশ্বাস করি। বন্ধুর মত বিশ্বাস করি কিন্তু অন্ধভাবে বিশ্বাস করি না। সে আমার প্রেমিকা। অতন্ত সাধারন একটা মেয়ে। তাই অনেক কিছু বুঝে না সে। তাকে নিয়ে আমার কোন সমস্যা নেই। কাউকে নিয়েই আমার কোন সমস্যা নেই। আমার সমস্যা নিজেকে নিয়ে। লজিক ছাড়া কোনকিছু মেনে নিতে পারি না। যথেষ্ট কারন ছাড়া কাউকে বিশ্বাস করতে পারি না। আমি কি সাইকোপ্যাথ? আমার রাগ প্রচন্ড লেভেলের বেশি। এত বেশি যে রাগগুলো প্রকাশ করতে হলে চিৎকার করতে ইচ্ছে করে গলা ফাটিয়ে। স্মোকিং করি। প্রচুর স্মোকিং করি। স্মোকিং ছাড়তে পারি না। চেষ্টা করেছি নিজ থেকে পারিনি। আমার ভেতরের একটা অংশ এটা ছাড়তে দেয় না। সিগারেট না খেয়ে ১ দিন থাকতে পারি কষ্ট করে কিন্তু তখন চারপাশ মনে হয় ধীরে চলছে। মাথা ঘুরে হঠাৎ করে। হাত কাপে প্রচুর। সিগারেট ছাড়া কষ্ট হয় অনেক। সিগারেট না ছেড়ে মেন্টালি নরমাল থাকার কোন উপায় বলুন প্লিজ। কম্লিটলি স্ট্রেঞ্জারের সাথে কথা বলতে ইচ্ছে করে মেসেজিং এ।  এমন কার সাথে যার সাথে ২/৩ দিন কথা বলার পর সেই কথাগুলো টোটালি ভূলে যাবে। খুব একা লাগে ইদানীং। আবার সুইসাইডের চিন্তা মাথায় আসে হঠাৎ হঠাৎ। বাকি জীবন বেচে থাকাটা ননসেন্স আইডিয়া মনে হচ্ছে।

Answered By : AR Rahman

  1 week ago

প্রশ্ন করুন আপনিও